এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > নতুন বছরের শুরুতেই এই হেভিওয়েট নেতার সঙ্গে বৈঠকে রাহুল গান্ধী, বদলে যাবে বাংলার রাজনৈতিক সমীকরণ?

নতুন বছরের শুরুতেই এই হেভিওয়েট নেতার সঙ্গে বৈঠকে রাহুল গান্ধী, বদলে যাবে বাংলার রাজনৈতিক সমীকরণ?



আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে কেন্দ্র থেকে নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্ত্বাধীন বিজেপি সরকারকে সরাতে মরিয়া রাহুল গান্ধীর নেতৃত্ত্বাধীন জাতীয় কংগ্রেস। ইতিমধ্যেই কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী ইঙ্গিত দিয়েছেন যে, বিজেপিকে কেন্দ্র থেকে হঠাতে গেলে বিভিন্ন দলের সঙ্গে জোট করতে হবে এবং সেই জোটের ক্ষেত্রে জাতীয় কংগ্রেস অনেক ‘নমনীয়’ হবে।

এদিকে গো-বলয়ে তিন রাজ্যে বিজেপিকে ধরাশায়ী করে যেন নতুন করে অক্সিজেন পেয়েছে কংগ্রেস। ইতিমধ্যেই তামিলনাড়ুতে খুঁজে পেয়েছে নতুন জোটসঙ্গী – ডিএমকে-কে। তামিলনাড়ুর বর্তমান শাসকদল এআইএডিএমকে দলনেত্রী জয়ললিতার মৃত্যুর পর কার্যত ছত্রভঙ্গ। ফলে ডিএমকের সঙ্গে কংগ্রেসের এই জোট দক্ষিণে বেশ ভালো রকমের ফায়দা দেবে রাহুল গান্ধীকে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে, বাংলার ক্ষেত্রে রাহুল গান্ধী বা সোনিয়া গান্ধী চান ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করতে। কিন্তু, তৃণমূলনেত্রী ইতিমধ্যেই ঘোষণা করে দিয়েছেন, বাংলায় তাঁর দল একাই ৪২ টির মধ্যে ৪২ টি আসন জেতার জন্য লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবে। এই অবস্থায়, রাজ্যের কংগ্রেস নেতারা কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে জোটে খুব একটা আগ্রহী নন। তাঁদের ধারণা – এই জোট হলেও কার্যত তা তৃণমূলের শর্তে হবে। বাংলার নেতারা বরং অনেক বেশি আন্তরিক বামফ্রন্টের সঙ্গে জোটে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিকে সূত্রের খবর, জানুয়ারী মাসের তৃতীয় সপ্তাহে মুখোমুখি বৈঠকে বসতে পারেন রাহুল গান্ধী ও সীতারাম ইয়েচুরি। সরকারিভাবে জানা গেছে, এই বৈঠক মূলত ২০১৯-এর রণকৌশল নিয়ে হতে চলেছে। কিন্তু, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, বাংলায় জোট করতে চাইলেও – কেরালায় কংগ্রেস ও বামফ্রন্ট, আদতে দুই যুযুধান প্রতিপক্ষ। তাই, দুই দলের দুই শীর্ষনেতা আলোচনায় বসে – এর একটা সুষ্ঠু সমাধান বের করতে চলেছেন।

সূত্রের খবর, কট্টরপন্থী হিসাবে পরিচিত বামফ্রন্টের ‘কেরল-লবি’ ক্রমশ নরম অবস্থান নিচ্ছেন। ইতিমধ্যেই, চেন্নাইয়ে প্রয়াত ডিএমকে নেতা করুণানিধির মূর্তি উন্মোচন অনুষ্ঠানে একই মঞ্চে দেখা গিয়েছে কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন এবং কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে। ফলে, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে ক্রমশ বাড়ছে কংগ্রেস ও বামফ্রন্টের জোট সম্ভবনা। সেক্ষত্রে, বাংলায় হতে চলেছে ত্রিমুখী লড়াই – যা অনেক আসনের ফলাফল উল্টে দিতে পারে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!