এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > কংগ্রেস > হুইলচেয়ারে করে প্রচারে মমতা, সহানুভূতি আদায়ের চেষ্টা, কটাক্ষ বিরোধীদের!

হুইলচেয়ারে করে প্রচারে মমতা, সহানুভূতি আদায়ের চেষ্টা, কটাক্ষ বিরোধীদের!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সম্প্রতি নন্দীগ্রামে গিয়ে পায়ে চোট পান তৃণমূল নেত্রী তথা নন্দীগ্রামের প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তারপরেই রাজ্য রাজনীতিতে এই বিষয় নিয়ে আলোড়ন তৈরি হতে শুরু করে। তৃণমূলের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, চক্রান্ত করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর হামলা করা হয়েছে। যদিও বা মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা বলয় থাকা সত্ত্বেও কিভাবে কেউ বা কারা তার ওপর হামলা করল, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দেয় বিরোধীরা। এমনকি এই বিষয় নিয়ে সহানুভূতি আদায় করার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নাটক করছেন বলে অভিযোগ করে বিরোধী দলের একাধিক নেতা নেত্রী।

তবে এর মাঝেই বৃহস্পতিবার একটি ভিডিও বার্তায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দেন, তার পায়ে চোট লেগেছে। কিন্তু তিনি কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি বাতিল করছেন না। প্রয়োজনে পায়ে চোট লাগার জন্য কিছুদিন তাকে হুইলচেয়ারে করে ঘুরতে হবে। স্বাভাবিক ভাবেই হুইলচেয়ারে করেই যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবার প্রচার পর্বে সামিল হবেন, তা কার্যত নিশ্চিত বিশেষজ্ঞদের কাছে। আর এই পরিস্থিতিতে এই গোটা বিষয়টি নিয়ে শুরু হয়ে গেল রাজনৈতিক তরজা।

প্রসঙ্গত, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আহত হওয়ার পরেই এই বিষয় নিয়ে কটাক্ষ করতে শুরু করেছিল বাম, কংগ্রেস এবং বিজেপি। প্রত্যেকের পক্ষ থেকেই অভিযোগ করা হয়েছিল, সহানুভূতি আদায় করার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নাটক করছেন। আর এবার ভিডিও বার্তার পর মুখ্যমন্ত্রীকে আরও একবার কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে দিল মার্কসবাদী কমিউনিস্ট পার্টি। সিপিএমের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, তৃণমূল নেত্রী হুইলচেয়ারে প্রচার করছেন আসলে সহানুভূতি আদায় করার জন্য।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন হুইলচেয়ারে করে পায়ে চোট পাওয়ার জন্য প্রচার করবেন বলে জানাচ্ছেন, তখন তাকে যেভাবে সিপিএম কটাক্ষ করল, তাতে রাজনৈতিক পারদ আরও বাড়তে পারে বলেই মনে করছেন একাংশ। ইতিমধ্যেই বিরোধীদের পক্ষ থেকে এই ঘটনাকে নাটক বলা হলেও পাল্টা তৃণমূলের পক্ষ থেকে যুক্তি দেওয়া হয়েছে। শাসক দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যারা এই ঘটনাকে নাটক বলছেন, তারা একবার হাসপাতলে গিয়ে দেখে আসুন। তাহলেই গোটা পরিস্থিতি পরিষ্কার হয়ে যাবে।

তবে তৃণমূলের পক্ষ থেকে যতই এই কথা বলা হোক না কেন, এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভিডিও বার্তার পরে তার হুইলচেয়ারে করে প্রচার বিষয়টিকে হাতিয়ার করে পাল্টা কটাক্ষ করতে শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। যাকে কেন্দ্র করে এখন সরগরম রাজ্য রাজনীতি। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!