এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সুপ্রিম কোর্টের রায় বেরোতেই শুরু তৎপরতা – কবে শেষ হচ্ছে পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনের কাজ?

সুপ্রিম কোর্টের রায় বেরোতেই শুরু তৎপরতা – কবে শেষ হচ্ছে পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনের কাজ?



রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জেতা প্রার্থীদের ভাগ্য সুপ্রিম কোর্টের রায়ের ভিত্তিতে সুনিশ্চিত হয়ে যেতেই – এবার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জেতা ২০ হাজার ১৫৯ জন সদস্যকে জয়ী সংশাপত্র দেওয়ার কাজও শুরু হয়ে গেল। এর সাথেই আগামী সেপ্টেম্বর মাসের মাঝামাঝি নাগাদ রাজ্যের সব পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনের প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে বলে রাজ্যের প্রত্যেক জেলার জেলাশাসকদের কাছে একটি নির্দেশও পাঠাতে চলেছে রাজ্যের পঞ্চায়েত দপ্তর।

সূত্রের খবর, সরকারের এই নির্দেশ মোতাবেক আগে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ীদের শপথ গ্রহণ ও পরে এক এক করে বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান, উপপ্রধান, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি, সহ-সভাপতি এবং জেলা পরিষদের সভাধিপতি ও সহ-সভাধিপতি নির্বাচন করা হবে। আর এই শপথ গ্রহনের পরই বিনা প্রতিন্দ্বন্দ্বীতায় জয়ী ২০ হাজার ১৫৯ প্রার্থীকে প্রশিক্ষণও দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এতদিন এই বোর্ড গঠনে মূল বাধা ছিল এই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জেতা প্রার্থীদের জয়ী ঘোষণার বিষয়টি – যা নিয়ে মামলা চলছিল সুপ্রিম কোর্টে। আর তাই নির্বাচন কমিশনও এই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ‘জয়ী’ সদস্যদের জয়ী বলে ঘোষণা করতে পারছিল না। কিন্তু, সম্প্রতি এই নিয়ে রায়ে দেশের শীর্ষ আদালতের সবুজ সংকেত মেলায় এবার সেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী প্রার্থীদের সার্টিফিকেট তুলে দেওয়ার পাশাপাশি পঞ্চায়েতগুলিকে কর্মচঞ্চল করে তুলতে চায় রাজ্য সরকার।

বোর্ড গঠনের আগে যাতে এই পঞ্চায়েতের কাজে কোনো বিলম্ব না হয় সেই কারনে বিডিও, এসডিও এবং জেলাশাসকদের ইতিমধ্যেই তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এবার সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে সেই সমস্ত পঞ্চায়েতগুলিতে দ্রুততার সঙ্গে বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া শেষ করতে চায় রাজ্য পঞ্চায়েত দপ্তর।

সূত্রের খবর, গতকাল থেকেই রাজ্যের প্রতিটি পঞ্চায়েতে নির্বাচিত ৫৮ হাজার ৬৯২ জনের নামের তালিকা এবং কোন আসনে নির্বাচিত, তার বিজ্ঞপ্তি ছাপার কাজ শুরুর পাশাপাশি সোমবার থেকেই সেই বিজ্ঞপ্তি যাতে প্রতিটি জেলায় পৌছে যায় তার জন্য জোরকদমে প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। সব মিলিয়ে পঞ্চায়েত ভোট কেটে যাওয়ার পর এবার গ্রামোন্নয়নে ফের জোর দিতে চান বঙ্গের প্রশাসনিক প্রধান।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!