এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় কি এবার তৃণমূলেই যোগ দিতে চলেছেন? নিজেই বাড়ালেন জল্পনা

ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় কি এবার তৃণমূলেই যোগ দিতে চলেছেন? নিজেই বাড়ালেন জল্পনা



ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় এই মুহূর্তে রাজ্য-রাজনীতিতে অন্যতম বিতর্কিত নাম। তাঁর বিরুদ্ধে মহিলা ঘটিত বেশ কিছু অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁকে তাঁর দল সিপিএম সাসপেন্ড করেছে। কিন্তু তিনি আগেই জানিয়েছিলেন, দল তাঁকে বহিষ্কার করলেও, তাঁর অন্তরের সিপিএম সত্তাকে কেড়ে নিতে পারবে না। কিন্তু এরপরেই তিনি প্রকাশ্যে যা যা পদক্ষেপ নিয়েছেন তাতে করে বলায় যায় এইমুহূর্তে তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অন্যতম বড় ‘সমর্থক’। এর আগে তিনি রাজ্যসভায় কেন্দ্রীয় সরকারকে রীতিমত বিড়ম্বনায় ফেলে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের প্রকল্প ‘কন্যাশ্রীর’ গুণগান করে।

আর এবার তিনি তাঁর সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়ে দিলেন বাংলার সবথেকে বড় জননেত্রীর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এই ট্যুইট প্রকাশ্যে আসতেই রাজনৈতিক মহলে তীব্র জল্পনা, তাহলে কি এবার তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে পা বাড়িয়ে ফেললেন এই বিতর্কিত তরুণ সাংসদ। সেই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে তিনি ‘রহস্য’ আরো বাড়িয়েছেন। তিনি বলেছেন, ভবিষ্যতের কথা তো ভবিষ্যত্‍ বলবে! কেউ তো অস্বীকার করতে পারবেন না উনি (বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) পশ্চিমবঙ্গে এই মুহূর্তে সবচেয়ে বড় জননেত্রী। তিনি আরও জানিয়েছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘বাংলার’ মুখ্যমন্ত্রী, তাই তিনি বাঙালির পক্ষ নিয়ে অবস্থান নিলে, তিনি তার স্বপক্ষে সরব হবেন। কারণ, বাংলার হয়ে লড়াই চালিয়ে যাওয়াটাই এখন তাঁর প্রধান লক্ষ্য। কিন্তু তাঁর এই ব্যাখ্যার পরেও জল্পনা থামছে না, কেননা আদর্শগত দিক দিয়ে তিনি আর তৃণমূলনেত্রী শত যোজন দূরে, সিপিএম থেকে নির্বাসিত হওয়ার আগে সেকথা তিনি বারেবারে ‘প্রমান’ করেছেন। কিন্তু তাঁর নাম ‘মহিলা ঘটিত কেলেঙ্কারিতে’ জুড়ে যাওয়ার পর তাঁর নামে সিআইডি তদন্ত শুরু হতেই তিনি হঠাৎ করে সেই আদর্শগত দূরত্ত্ব ঘুচিয়ে মুখ্যমন্ত্রী-বন্দনায় মুখর হয়ে উঠেছেন। আর তাই রাজনৈতিক মহল তাকিয়ে তিনি সত্যিই ঘাসফুল শিবিরে পা রাখেন নাকি সত্যিই ‘বাংলার’ জন্যই সরব সমর্থনে মুখ্যমন্ত্রীর পাশে থাকেন সেদিকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!