এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দেশজুড়ে হুহু করে বাড়ছে করোনা সংক্ৰমণ! কোন পথে ভারতবাসী পাবে মুক্তি? মোদীর দিকে তাকিয়ে সকলে

দেশজুড়ে হুহু করে বাড়ছে করোনা সংক্ৰমণ! কোন পথে ভারতবাসী পাবে মুক্তি? মোদীর দিকে তাকিয়ে সকলে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – করোনার চোখরাঙানি গোটা দেশজুড়ে ক্রমাগতই বৃদ্ধি পাচ্ছে। করোনা আক্রান্তের নিরিখে গোটা বিশ্বে ভারতবর্ষ এখন চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে। আক্রান্তের নিরিখে গত ২৪ ঘন্টায় ভারত রেকর্ড করলো। এদিন দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১১ হাজার ৪৫৮ জন। এরমধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩৮৬ জনের। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৮৯৯৩ এবং মারা গেছে মোট ৮৮৮৪ জন। এরমধ্যে অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ১ লক্ষ ৪৫ হাজার ৭৭৯ টি।

সুস্থ হয়ে উঠেছেন প্রায় দেড় লক্ষের বেশি মানুষ। কিন্তু দেশে লকডাউন পর্ব শিথিল করার পরেই কোন সংক্রমণ উত্তরোত্তর হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা সচল রাখতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লকডাউন শিথিল করা হয়। কিন্তু করোনা সংক্রমনের হার ক্রমাগত বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে প্রধানমন্ত্রী ফের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আগামী ১৬ এবং ১৭ ই জুন একটি ভার্চুয়াল বৈঠকের আয়োজন করেছেন বলে জানা গেছে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

লকডাউন ঘোষণা হওয়ার আগে থেকে চতুর্থ দফার লকডাউন পর্যন্ত মোট চারবার প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। ২০ শে মার্চ প্রথম বৈঠক করেন এরপর ২রা এপ্রিল দ্বিতীয় বৈঠক করেন। ১১ ই এপ্রিল তৃতীয় বৈঠকে বসেন এবং ২৭ শেষ এপ্রিল চতুর্থ বৈঠক করা হয়। সূত্রের খবর প্রতিটি বৈঠকেই প্রতিটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নিজেদের সিদ্ধান্ত, মতামত সমস্ত কিছুই জানিয়েছিলেন। মূলত করোনা সংক্রমণ ঠেকাতেই এই ভার্চুয়াল বৈঠকের আয়োজন করা হয় বলে জানা গেছে।

বর্তমানে শুধু করোনা নয় এর সাথে যুক্ত হয়েছে ভূমিকম্প, বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, দাবানল ইত্যাদির মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগগুলিও। এই পরিস্থিতিতে অদূর ভবিষ্যতে ভারতবর্ষকে সুস্থ স্বাভাবিক জীবন কিভাবে দেওয়া যেতে পারে তা নিয়েই আগামী বৈঠক হতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞগণ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এর আগে চারটি বৈঠক সারলেও আগামী বৈঠকের দিন হিসেবে ১৬ এবং ১৭ পরপর দুটো দিন ঠিক করা হয়েছে বলে আভাস পাওয়া গেছে।

প্রধানমন্ত্রী এদিন দেশবাসীর উদ্দেশ্যে জানিয়েছেন বর্তমানে ভারতে করোনার যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তার সঙ্গে লড়াই করা এবং ভারতকে করোনা মুক্ত করা এই মুহূর্তে একটা বিশাল বড় চ্যালেঞ্জ। তাই তিনি ভারতবাসীকে আত্মনির্ভর হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বলে জানা গেছে। বিশেষজ্ঞদের ধারণা অনুযায়ী আগামী যে বৈঠক হতে চলেছে তাতে করোনা সংক্রমণ ঠেকানোর নয়া কোন পন্থা প্রধানমন্ত্রীর তরফে জানানো হতে পারে এমনটাই সূত্রের খবর। যদিও বৈঠক না হওয়া পর্যন্ত দলের শীর্ষ নেতারা এ বিষয়ে কোনভাবেই মুখ খুলতে চান না বলে জানা গেছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!