এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > ভুয়ো পোষ্ট ঘিরে আবার অশান্তি! তৃণমূল ও বিজেপির রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে

ভুয়ো পোষ্ট ঘিরে আবার অশান্তি! তৃণমূল ও বিজেপির রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কিত মেসেজের বিষয়টি যেন আর শেষ হচ্ছে না। কয়েকদিন আগেই দুর্গাপূজা সংক্রান্ত একটি ভুয়ো পোস্ট ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেই পোস্টে কোভিড পরিস্থিতিতে দুর্গাপুজোর বেশ কিছু বিধিনিষেধ দেখা যায়। যদিও প্রশাসনের নজরে আসার সাথে সাথেই পোস্ট কর্তাদের গ্রেপ্তার করা হয় ঘোলা এবং বরানগর থেকে। জানানো হয়, রাজ্য প্রশাসন এখনো দুর্গাপূজা সংক্রান্ত কোনো রকম সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেনি। এদিন আবারো একই রকম ভুয়ো পোস্ট দেখা গেল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

তবে এবার ভুয়ো পোস্ট ছড়ানোর ব্যাপারে সরাসরি নাম জড়িয়েছে বিজেপির। সম্প্রতি একটি ভুয়ো পোস্ট নজরে আসে, যেখানে বলা হয়েছে এবছর রাজ্য প্রশাসন দুর্গাপুজো করতে দেবেনা। মেসেজটি ভাইরাল হওয়ার সাথে সাথেই প্রশাসনের নজরে আসে এবং তারপরেই পোস্টদাতাকে গ্রেফতার করা হয়। এই ঘটনায় পূর্ব বর্ধমানের মেমারি থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে সুনীল মন্ডল নামে স্থানীয় এক বিজেপি নেতাকে। অভিযোগ উঠেছে এই সুনীল মন্ডল আগেও তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কুরুচিকর ছবি পোস্ট করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বর্তমানে রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে। ঘটনা সামনে আসার সাথেই তৃণমূল গেরুয়া শিবিরের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে জানিয়েছে, বাংলা সংস্কৃতিতে ভাঙন ধরানোর জন্য বিজেপির আইটি সেল অপপ্রচার চালাচ্ছে। অন্যদিকে বিজেপির দাবি, শুধুমাত্র বিজেপি করার জন্যই গ্রেপ্তার করা হয়েছে সুনীল মণ্ডলকে। সম্প্রতি রাজ্য পুলিশের তরফে সতর্ক করে দেওয়া হয় ভুয়ো পোষ্টের ব্যাপারে। কিন্তু তারপরেও দেখা যায় বিভ্রান্তি মূলক পোস্ট ক্রমাগত হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

ইতিমধ্যে পুলিশ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে। কিন্তু তার পরেও মেমারির কৃষ্ণবাজার এলাকার সুনীল মণ্ডল ভুয়ো পোস্ট করেন। বিষয়টি পুলিশের নজরে আসার সাথে সাথেই তাঁরা পদক্ষেপ গ্রহণ করে এবং গ্রেপ্তার করে সুনীল মণ্ডলকে। যদিও সুনীল মন্ডল দাবি করেছেন, তিনি ফরওয়ার্ড করা মেসেজ পেয়েছেন এবং সেটাই শেয়ার করেন। পুলিশের বার্তা পেয়ে তিনি মেসেজটি মুছেও দেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কারণ তিনি বিজেপি করেন।

অন্যদিকে রাজ্যের অন্যতম তৃণমূল মুখপাত্র দেবু টুডু জানিয়েছেন, গেরুয়া শিবির বাংলায় ধর্মীয় বিভাজনের হাত ধরে একুশের বিধানসভা নির্বাচন জেতার স্বপ্ন দেখছে। আর তাই মানুষের মনে বিভেদ তৈরি করতে তাঁরা বিভিন্ন ধরনের মিথ্যা প্রচার চালাচ্ছে। রাজনৈতিক মহলের মতে, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তৃণমূল ও বিজেপির রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব অন্যমাত্রা পেল। তবে এই দ্বন্দ্বের রেশ যে বেশ কিছুদিন চলবে সে কথা বলাইবাহুল্য। তবে দুর্গাপূজাকে কেন্দ্র করে রাজ্য প্রশাসন জানিয়ে দিয়েছে, তাদের তরফ থেকে যেকোনো সিদ্ধান্ত ঠিক হলে তা মিডিয়াতে প্রকাশ পাবে আগে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!