এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ক্যাশ কুপন বিলি করছে বিজেপি।” – অভিযোগ হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদের

“ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ক্যাশ কুপন বিলি করছে বিজেপি।” – অভিযোগ হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদের



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আজ তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক সম্মেলন থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ করেছেন তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়। তিনি অভিযোগ করেছেন, ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে কুপন বিলি করছে বিজেপি। যে কুপনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভায় গেলে ১০০০ টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া আছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি নির্বাচন কমিশনের কাছে।

তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় অভিযোগ করেছেন যে, ভোটের জন্য বিজেপির পক্ষ থেকে কুপন বিলি করা হচ্ছে। তিনি অভিযোগ করেছেন, এভাবে টাকা ছড়িয়ে ভোট দেওয়ার বিষয়টি কি করে নির্বাচন কমিশনের চোখ এড়িয়ে গিয়েছে? তা বুঝতে পারছেন না তিনি। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে বারবার বলা হয়েছে যে, নির্বাচন যাতে শান্তিপূর্ণ ও দুর্নীতিমুক্ত হয়, তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সুখেন্দু শেখর রায় অভিযোগ করেছেন, গত পয়লা এপ্রিল থেকে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় লোক আনতে ও বিজেপিকে ভোট দিতে গোপনে কুপন বিলি করা হচ্ছে। যা বিলি করা হচ্ছে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে। যেখানে প্রধানমন্ত্রীর ছবি, জনসভার কথা, ১ হাজার টাকা দেওয়ার কথা রয়েছে। তিনি জানালেন, দলীয় সূত্র, সংবাদমাধ্যম থেকে এই খবর জানতে পেরেছেন তিনি। যারা প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যাবেন, তাঁরা বিজেপি প্রার্থীর কাছে কুপন জমা দিলেই ১০০০ টাকা পাবেন।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এই বিষয়টি তাঁরা নির্বাচন কমিশনকে জানিয়েছেন। এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। বৈঠকে শুখেন্দু শেখর রায় প্রশ্ন করেছেন যে, প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় এত লোক কি করে হচ্ছে? বিজেপির অন্যান্য নেতার সভা যেখানে ফাঁকা পড়ে থাকছে। তিনি অভিযোগ করেছেন, প্রধানমন্ত্রীকে অসম্মান থেকে বাঁচাতে টাকা ছড়াচ্ছে বিজেপি। এভাবে টাকা দেবার মত ঘটনা পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে আগে ঘটেনি। এ জিনিস বন্ধ করার দাবি জানিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে, তারকেশ্বরে এক জওয়ানের বিরুদ্ধে নাবালিকা ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছিল। এ বিষয়ে শুখেন্দু শেখর রায় জানালেন যে, বিষয়টি নিয়ে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছেন তাঁরা। এই জওয়ানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কিনা? সে বিষয়টি তাঁরা এখনো জানতে পারেন নি। পকসো আইনে এই জওয়ানের বিচারের দাবি জানিয়েছেন তিনি। তাঁকে গ্রেপ্তার করারও দাবি জানিয়েছেন তিনি।

আবার তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় জানালেন, রাফাল বিষয়ে ফ্রান্সে ইতিপূর্বে দুর্নীতির তথ্য সামনে এসেছিল। ভারতের মতো ফ্রান্সেও পরে সমস্ত কিছু আড়াল হয়ে যায়। তিনি জানান যে, রাফাল চুক্তির বিষয়ে ঘুষের কথা স্বয়ং রবিশঙ্কর প্রসাদ মেনে নিয়েছিলেন। এ বিষয়ে উচ্চ পর্যায়ে তদন্তের দাবি জানিয়েছেন তিনি।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!