এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ভোটের আগে সরকারি কর্মীদের মন পাওয়ার চেষ্টা? একদিকে DA নিয়ে মামলা, অন্যদিকে বড় ঘোষণা মমতার

ভোটের আগে সরকারি কর্মীদের মন পাওয়ার চেষ্টা? একদিকে DA নিয়ে মামলা, অন্যদিকে বড় ঘোষণা মমতার



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – একুশের বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আরও একটি জনমোহিনী পদক্ষেপ। এবার সরকারি কর্মচারীদের পাশে পেতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ডিএ শুরু করতে চলেছেন। দীর্ঘদিন ধরেই ডিএ নিয়ে জট বাড়ছিল রাজ্যে। গত বছর স্যাটের নির্দেশ অনুসারে কেন্দ্রীয় সরকার যে নিয়মে ডিএ বা মহার্ঘ ভাতা দেয়, সেই নিয়ম মেনে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদেরও ডিএ দেবার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেই নির্দেশ কার্যকর করা হয়নি।

এদিকে বেতন কমিশন নির্ধারিত হয়ে যায়। কিন্তু অবশেষে এবার ভোটের মুখে এসে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের 3 শতাংশ হারে ডিএ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। সূত্রের খবর, সামনের জানুয়ারি মাস থেকে রাজ্য সরকারী কর্মচারীদের 3% হারে ডিএ দেওয়া হবে বলে জানা যাচ্ছে। একইসঙ্গে আজকের বৈঠকে অর্থসচিব জানান, ডিএ দিতে গিয়ে 2200 কোটি টাকার বাড়তি খরচের বোঝা চাপছে রাজ্য সরকারের ঘাড়ে।

তবে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ঋণের বোঝা থাকলেও ডিএ দেওয়া হবে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের। এ প্রসঙ্গে তিনি আরও জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় সরকার কিন্তু আগামী দু’বছরের জন্য ডিএ রদ করে দিয়েছেন। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের অনিশ্চয়তার সময় তাঁদের পাশে দাঁড়ানোর মানবিক আবেদন জানিয়েছেন। খুব স্বাভাবিভাবেই ডিএর মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকারের দিকে কটাক্ষ ছুঁরলেন মুখ্যমন্ত্রী বলে মনে করা হচ্ছে।আর্থিক অসুবিধার মধ্যে পড়েও 2020 সাল থেকে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের নতুন পে কমিশন চালু করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে অর্থ সচিব জানিয়েছেন, 2011 সালে রাজ্য সরকারি কর্মীরা যেখানে 30% মহার্ঘভাতা পেতেন, পে-কমিশন চালু হওয়ার আগেই তা বেড়ে দাঁড়িয়েছিল 125%। মুখ্যমন্ত্রীও জানিয়েছেন, পে-কমিশন চালু করতে রাজ্য সরকারকে অতিরিক্ত 14 হাজার কোটি টাকা খরচ করতে হচ্ছে। ষষ্ঠ পে কমিশন অনুযায়ী সরকারি কর্মীদের বেতন 100 টাকা হলে পে কমিশন অনুযায়ী তাঁর বেতন হচ্ছে বর্তমানে 280.90 পয়সা। এর সাথেই গ্র্যাচুয়িটির টাকাও 1 লক্ষ টাকা থেকে বেড়ে 12 লক্ষ টাকা হয়েছে।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

2019 এর 26 শে জুলাই রাজ্য সরকারি কর্মীদের ডিএ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল স্যাট। কিন্তু রাজ্য সরকার তা না দেওয়ায় সরকারি কর্মীরা পরবর্তীতে মামলা করেছিল রাজ্য সরকারের নির্দেশের বিরুদ্ধে। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকেও স্যাটের বিরুদ্ধে রিভিউ পিটিশন দায়ের করা হয়। এর মধ্যেই তৃণমূল পন্থী রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে চিঠি দেন। অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী ডিএ বাড়ানোর পাশাপাশি কেন্দ্রের বঞ্চনা নিয়েও এদিন সরব হন।

এদিন তিনি দাবি করেন, কেন্দ্রের কাছে রাজ্য প্রায় 25 হাজার কোটি টাকা পায়। পাশাপাশি 2000 টাকার দুর্নীতি নিয়েও মুখ্যমন্ত্রী এদিন মুখ খুলেছেন। পি এম কেয়ার্সের টাকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়াও তিনি রাজ্যজুড়ে করোনার খরচ কিভাবে হচ্ছে তা নিয়ে বিস্তারিত জানান। মুখ্যমন্ত্রী এদিন কেন্দ্রীয় সরকারের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে বলেন, ঘটনার পাশাপাশি আম্ফান এর ক্ষেত্রেও কেন্দ্রীয় সরকার এখনো পর্যন্ত কোন রকম টাকা দেয়নি ঘোষণা সত্ত্বেও।

এই প্রসঙ্গে এই মুহূর্তে রাজ্য সরকারি কর্মচারী আন্দোলনের অন্যতম মুখ সরকারি কর্মচারী পরিষদের রাজ্য আহ্বায়ক দেবাশীষ শীলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, যেখানে মোট ২৪ শতাংশ ডিএ (১.৭.২০১৬ – ৩১.১২.২০১৯ = ১৭% + ১.১.২০২০= ৪% + ১.৭.২০২০=৩%) পাওনা, সেখানে রাজ্য সরকারী কর্মচারী, আধা সরকারী কর্মচারী, শিক্ষক, শিক্ষাকর্মী, পেনসনারদের মাত্র ৩ শতাংশ ডিএ আগামী জানুয়ারী, ২০২১ থেকে দেওয়া আসলে ভিক্ষা দেবার সামিল। আমরা এ বঞ্চণা, অসম্মান মানব না। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে এই সরকারের পতন অনিবার্য। এই প্রসঙ্গে একটা কথাই বলব, দড়ি ধরে মারো টান, রাণী হবে খান খান। ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে এটাই হবে।

 

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!