এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > শিয়রে ভোট, উন্নয়নই পাখির চোখ মমতার! এবার বড়সড় ধাক্কা খেতে চলেছেন রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা?

শিয়রে ভোট, উন্নয়নই পাখির চোখ মমতার! এবার বড়সড় ধাক্কা খেতে চলেছেন রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা?



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নতুন ঘোষণা অনুযায়ী ১লা ডিসেম্বর থেকে দুয়ারে দুয়ারে সরকার যাবে। আর এই কর্মসূচিকে ‘দুয়ারে সরকার’ নাম দেওয়া হয় বলেও জানা যায়। সেইসঙ্গে করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এই শিবিরের আয়োজন করা হবে বলেও জানা গেছে। এই কর্মসূচির মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেছিলেন যে যাঁরা এখনও কোনও সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পাননি, তাঁরা এরপর সেই সুবিধা পাবেন।

সেক্ষেত্রে, ‘দুয়ারে সরকার’ কর্মসূচিতে যে ১২ টি প্রকল্পের পরিষেবা মিলবে তার মধ্যে থাকবে, খাদ্য ও সরবরাহ দপ্তরের খাদ্যসাথী, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের স্বাস্থ্যসাথী, অনগ্রসর শ্রেণিকল্যাণ ও আদিবাসী উন্নয়ন বিভাগের জাতিগত শংসাপত্র ও শিক্ষাশ্রী, আদিবাসী উন্নয়ন বিভাগের জয় জোহার, অনগ্রসর শ্রেণিকল্যাণ বিভাগের তফসিলি বন্ধু, নারী ও শিশু উন্নয়ন এবং সমাজ কল্যাণ বিভাগের কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, সংখ্যালঘু বিষয়ক ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের ঐক্যশ্রী, পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন বিভাগের একশো দিনের কাজ।

এছাড়া কৃষি দপ্তরের কৃষক বন্ধু এবং ভূমি ও ভূমি সংস্কার দপ্তরের মিউটেশন। আর এই ব্যাপারে ইতিমধ্যেই মুখ্যসচিবের স্বাক্ষর করা নির্দেশিকা জারি হয়ে গেছে বলেও জানা গেছে। তথ্য সূত্রে জানা গেছে, চারটি পর্যায়ে চলা এই কর্মসূচির প্রথমটি হবে ১লা থেকে ১১ই ডিসেম্বর পর্যন্ত। দ্বিতীয়টি ১৫ থেকে ২৪শে ডিসেম্বর, তৃতীয় পর্যায়ে ২রা থেকে ১২ই জানুয়ারি এবং চতুর্থটি হবে ১৮ থেকে ২৮শে জানুয়ারি।

উত্তরবঙ্গের পর এবার পুরুলিয়াতেও সেই কর্মসূচি শুরু হওয়ার কথা জানা গেছে। সেইসঙ্গে রবিবার এই নিয়ে বৈঠক করতে দেখা গিয়েছিল জেলা প্রশাসনিক ভবনে বিডিও, মহকুমাশাসক ও অতিরিক্ত জেলাশাসক এবং জেলাশাসক অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়কে। জানা গেছে, প্রত্যেকটি গ্রাম পঞ্চায়েতের শিবিরেই ব্লকের একজন সম্প্রসারণ আধিকারিক থাকবেন।

এছাড়া প্রত্যেক মহকুমায় মহকুমাশাসক ছাড়াও অতিরিক্ত জেলাশাসকরাও এই কর্মসূচির তদারকি করবেন বলে জানা গেছে। আর সেখানে কর্মসূচিকে সফল করার লক্ষ্যে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় সমস্ত সরকারি কর্মী ও অফিসারদের ছুটি বাতিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। তাই যেসব অফিসার ও কর্মীরা ইতিমধ্যেই ছুটিতে আছেন, তাঁদের আজ, সোমবারের মধ্যে কাজে যোগ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সেক্ষেত্রে জানানো হয়েছে যে, নিজের কিংবা পরিবারের কারও জরুরি অসুবিধা ছাড়া আগামী দু’মাস ছুটি মঞ্জুর করা যাবে না। এই বিষয়ে শনিবার জেলাশাসক বিভু গোয়েল জেলার সকল মহকুমা শাসক এবং বিডিওর সঙ্গে ‘দুয়ারে সরকার’ কর্মসূচি নিয়ে বৈঠক করেছেন বলেও জানা গেছে। আর সেখানে আগামী দু’মাস গোটা জেলা প্রশাসনের কাছে তৎপরতার সঙ্গে কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে জানান হয়েছে।

গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে জেলাশাসক অফিস পর্যন্ত প্রত্যেককে এই কর্মসূচিতে নিজের সেরাটা দিতে হবে বলেও পূর্ব মেদিনীপুরের ডিএম জানিয়েছেন বলে জানা যায়। এব্যাপারে তিনি জানিয়েছেন ‘দুয়ারে সরকার’ এই কর্মসূচি নিয়ে তাঁরা শনিবার একটি বৈঠক করেছেন। সেখানে নিজের কিংবা পরিবারের কারও ইমার্জেন্সি কোনও অসুবিধা না থাকলে কারও ছুটি হবে না বলেই জানিয়েছেন তাঁরা।

তাঁদের কথায়, তাঁদের দাবি সরকারের এই কর্মসূচিতে সফল করার জন্য প্রত্যেককে ঝাঁপাতে হবে। সেক্ষেত্রে গ্রাম পঞ্চায়েত এবং পুরসভার অফিসার-কর্মীদের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও জানা গেছে। শনিবার সন্ধ্যায় জেলাশাসকের উপস্থিতিতে বৈঠকের পর রাতেই বিডিওরা নিজের নিজের ব্লকের সব কর্মীর ছুটি বাতিলের বিষয়ে নোটিস দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে, পঞ্চায়েত স্তরে যেসব কর্মীরা ইতিমধ্যেই ছুটিতে রয়েছেন, তাঁদেরকেও সোমবার বেলা ১২টার মধ্যে অফিসে পৌঁছে বিডিও অফিসে জানানোর কথা জানানো হয়েছে বলেই জানা গেছে। একই সঙ্গে ব্লকস্তরের অফিসারদেরও ওই দিনের মধ্যে ব্লক হেড কোয়ার্টারে কাজে যোগ দিতে হবে বলেও জানান হয়েছে।

অন্যদিকে, এই কাজের জন্য গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা, স্কুল-কলেজ ভবন, কমিউনিটি হল-সহ সরকারের সুবিধামত প্রতিষ্ঠানে কাজ করা হবে বলে জানান হয়। যদিও সব ক্ষেত্রেই সেইসঙ্গে করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এই শিবিরের আয়োজন করা হবে বলেও জানা গেছে। সেইসঙ্গে প্রত্যেকটি প্রকল্পের কাজের জন্য পৃথক ঘর বা কাউন্টার থাকবে বলেও এদিন প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!