এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > ভোট পরবর্তী হিংসায় আক্রান্তদের খুঁজতে ভিন রাজ্যেও পারি ধনকরের! তৃণমূলের অস্বস্তি আরও বাড়ছে

ভোট পরবর্তী হিংসায় আক্রান্তদের খুঁজতে ভিন রাজ্যেও পারি ধনকরের! তৃণমূলের অস্বস্তি আরও বাড়ছে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই রাজ্যে হিংসার ঘটনা ক্রমাগতভাবে বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। আর হিংসার ঘটনা যখন বৃদ্ধি পাচ্ছে, তখন রাজ্য সরকারের সঙ্গে ক্রমশ দূরত্ব বাড়তে শুরু করেছে রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান জাগদীপ ধনকারের। ইতিমধ্যেই বেশ কিছু ইস্যুতে সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে শুরু করেছেন রাজ্যপাল। কোচবিহার জেলা সফর করে রাজ্যের সঙ্গে আরও দূরত্ব বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। বারবার সতর্ক করেছেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানকে।

তবে শুধু রাজ্যের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন নয়, এবার ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনায় যারা রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে পাড়ি দিয়েছেন, তাদের সকলের সঙ্গে দেখা করতে অসমের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন রাজ্যপাল। যে ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই রাজ্যপালের এই উদ্যোগের পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি যে আরও প্রশ্নের মুখে পড়ে গিয়েছে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

সূত্রের খবর, শুক্রবার কোচবিহার থেকে অসমের উদ্দেশ্যে রওনা দেন রাজ্যপাল। যেখানে আবহাওয়া খারাপ থাকার কারণে হেলিকপ্টারে প্রথমে যাওয়ার কথা থাকলেও, পরবর্তীতে সড়ক পথেই তিনি অসমের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। আর এরপরেই আসামে গিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ট্যুইটের মধ্যে দিয়ে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার।

যেখানে তিনি লেখেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে অনুরোধ, সংঘাতের পথ ছেড়ে সহযোগিতামূলক এবং সাংবিধানিক ব্যবস্থা গ্রহণ করুন।” অর্থাৎ রাজ্যপাল অসম সফরের মধ্য দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন যে, রাজ্যে হিংসার কারণে সেখানকার অনেক মানুষ অন্য রাজ্যে আশ্রয় নিয়েছেন। আর এই গোটা ঘটনায় যে তিনি অত্যন্ত মর্মাহত, তা নিজের মন্তব্যের মধ্যে দিয়ে বুঝিয়ে দিতে চাইলেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

পাশাপাশি রাজ্যের তৃণমূল সরকারের আমলে গণতন্ত্র যে সম্পূর্ণরূপে বিপন্ন, তা এই সফরের মধ্য দিয়ে আরও একবার পরিষ্কার করে দিয়ে রাজ্য সরকারের বিড়ম্বনা বাড়িয়ে দিলেন জাগদীপ ধনকার বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, এই গোটা ঘটনায় তৃতীয় বার ক্ষমতায় আসা তৃণমূল সরকারের বিড়ম্বনা অনেকাংশে বৃদ্ধি পেল। এক্ষেত্রে অন্য রাজ্যে গিয়ে রাজ্যপাল পশ্চিমবঙ্গের সরকারকে কটাক্ষ করার কারণে সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে তৃণমূল সরকার অনেকটাই অস্বস্তির মুখে পড়ে গেল। সদ্য তৃতীয়বার বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় এসেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

কিন্তু তারপরই রাজ্যজুড়ে হিংসার ঘটনায় শাসক দলকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে বিরোধী দল থেকে শুরু করে রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান। আর এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে ক্রমাগত হিংসা চলার কারণে বিরোধী দলের নেতা-কর্মীরা অসমে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। আর সেই আসামে গিয়ে যেভাবে তৃণমূল সরকারকে আক্রমণ করলেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান, তাতে সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল সম্পর্কে যে খুব একটা ভালো বার্তা গেল না, তা এককথায় পরিষ্কার।

সব মিলিয়ে তৃতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাজ্য বনাম রাজ্যপালের দ্বৈরথ যেমন বাড়ছে, ঠিক তেমনই রাজ্যপালের মন্তব্যে সরকারের ভাবমূর্তি যে অনেকাংশেই ক্ষুণ্ন হতে শুরু করল, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!