এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ভোটের মুখে সরতে হচ্ছে মুখ্যমন্ত্রী ঘনিষ্ঠ রাজীব কুমারকে, নতুন মুখ কে? শুরু তীব্র জল্পনা

ভোটের মুখে সরতে হচ্ছে মুখ্যমন্ত্রী ঘনিষ্ঠ রাজীব কুমারকে, নতুন মুখ কে? শুরু তীব্র জল্পনা



সামনেই দেশের লোকসভা ভোট। আর সেই লোকসভা ভোটের আগেই এবার বদলি হতে চলেছেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার। কিন্তু হঠাৎ রাজ্যের প্রশাসনিক মহলের সর্বোচ্চ শীর্ষ পদে এই বদলির ঘনঘটা কেন? জানা গেছে গত দুহাজার ষোলোর বিধানসভা ভোটে জেতার পরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজীব কুমার কে কলকাতার পুলিশ কমিশনার পদে নিয়োগ করেন। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের বিধি অনুযায়ী তিন বছর এই পদে থাকার পর সরে যেতে হবে সেই রাজীব কুমারকে। আর এই সম্ভাবনা জোরালো হওয়ার সাথে সাথেই রাজ্যের প্রশাসনিক মহলের তীব্র জল্পনা ছড়িয়েছে যে তাহলে কে হবেন কলকাতা পুলিশের পরবর্তী কমিশনার?

জানা গেছে এই পদে জন্য উঠে আসছে একগুচ্ছ নাম। যেখানে রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের খুব কাছের এবং পছন্দের 1991 ব্যাচের স্মার্ট পুলিশ অফিসার তথা রাজ্যের বর্তমান ডিজি অনুজ শর্মা। তবে শুধু অনুজ শর্মাই নয়, আশ্চর্যজনকভাবে এই পদের জন্য উঠে এসেছে রাজ্যের ডেপুটি নিরাপত্তা উপদেষ্টা সুধীর মিশ্রের নামও। জানা গেছে, আর আড়ালে থেকে সব সময় দক্ষ ভূমিকা পালন করেছেন এই সুধীর মিশ্র।

অন্যদিকে কলকাতা পুলিশের নতুন কমিশনার হিসেবে প্রতিযোগিতার দৌড়ে রয়েছেন 1993 ব্যাচের জ্ঞান বন্ত সিংও। তবে জল্পনা-কল্পনা যাই চলুক না কেন, শেষ পর্যন্ত যে এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তা সকলের মাথাতেই রয়েছে। আর তাই তো কেউ আগ বাড়িয়ে এই ব্যাপারে কোনরূপ মন্তব্য করতে নারাজ। কেননা অতীতে একজন আইপিএস অফিসার কলকাতার পুলিশ কমিশনার হওয়ার খুশিতে আগাম পার্টি দিয়েছিলেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কিন্তু পরে তার আর পুলিশ কমিশনার হওয়ার স্বপ্ন সফল হয়নি। তাই শেষ পর্যন্ত রাজ্যের সর্বোচ্চ প্রশাসনিক প্রধান এই ব্যাপারে ঠিক কী পদক্ষেপ নেয় সেই দিকেই তাকিয়ে প্রশাসনিক মহল। তবে সূত্রের খবর, সারদা তদন্ত সহ বেশ কিছু কারণে এখনই কোনো নতুন পুলিশ কমিশনারকে কলকাতা পুলিশের শীর্ষপদে বসাতে চায় না রাজ্য। তাই অভিজ্ঞতা রয়েছে এমন মুখকেই এই পথে বসাতে আরো কিছুদিন সময় নিতে চায় রাজ্য সরকার বলে মত রাজ্য প্রশাসনের একাংশের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!