এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আসছে ভোট, অ্যাকশন শুরু সিবিআইয়ের! কলকাতায় নতুন টিম পা দিতেই নোটিশ গেল চার প্রভাবশালী কাছে!

আসছে ভোট, অ্যাকশন শুরু সিবিআইয়ের! কলকাতায় নতুন টিম পা দিতেই নোটিশ গেল চার প্রভাবশালী কাছে!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –প্রশাসনিক মঞ্চ হোক বা রাজনৈতিক মঞ্চ, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হতে গিয়ে কেন্দ্রীয় এজেন্সি লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অর্থাৎ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য অনুযায়ী ভোট এলেই সিবিআই দিয়ে বিরোধীদের কব্জা করা হয়। আর একুশে জুলাই এর মঞ্চে থেকে যখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই কথা বলার চেষ্টা করলেন, ঠিক তার কিছুদিন পরে সিবিআইয়ের একটি টিম পা রাখল বাংলায়।

মূলত সারদা তদন্তেরর জন্যই সিবিআইয়ের প্রতিনিধিদল বাংলায় এসেছে বলে খবর। স্বাভাবিকভাবেই বিধানসভা নির্বাচনের আগে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার সারদা নিয়ে এই তৎপরতা নিঃসন্দেহে রাজ্যের শাসকদলের বিড়ম্বনা বাড়াতে শুরু করেছে বিশেষজ্ঞদের। সূত্রের খবর, রাঁচি থেকে রবিবার সিবিআইয়ের একটি টিম কলকাতায় আসে। যেখানে সুদীপ্ত সেন, দেবযানী মুখোপাধ্যায় এবং সুদীপ্ত সেনের ছেলে শুভ্রজিৎ সেন এবং পিয়ালী মুখোপাধ্যায়ের হাতে একটি নোটিশ ধরানো হয়। স্বাভাবিকভাবেই বিধানসভার যখন আর কিছু মাস বাকি, ঠিক তখনই সারদা নিয়ে নতুন করে সিবিআইয়ের এই তৎপরতা রাজনৈতিক গুঞ্জন বাড়াচ্ছে গোটা বাংলা জুড়ে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তৃণমূলের দাবি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঠিক কথাই বলেছেন। যখন নির্বাচন এগিয়ে আসছে, তখন তৃণমূলকে কাবু করার জন্য কেন্দ্রের পক্ষ থেকে এজেন্সি লাগিয়ে চক্রান্ত করা হচ্ছে। তবে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এবার বাংলার রাজনৈতিক অঙ্গনে যে ব্যাপক জলঘোলা হবে এবং তা নিয়ে যে শাসক-বিরোধী তরজা চরম পরিমাণে পৌছবে, তা নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না। অনেকে বলছেন, অতীতে মদন মিত্র থেকে শুরু করে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলের অনেক হেভিওয়েট নেতাকে নানা আর্থিক কেলেঙ্কারি মামলায় শ্রীঘর পর্যন্ত যেতে হয়েছিল।

বিরোধীদের একাংশ দাবি করে, যদি ঠিকমত তদন্ত হয়, তাহলে তৃণমূলের অনেক রাঘব বোয়ালের নাম সারদা তদন্তে জড়িয়ে পড়বে। তবে মাঝে বেশ কিছুদিন সারদা সহ একাধিক চিটফান্ড মামলার তদন্ত প্রক্রিয়া কার্যত বন্ধ ছিল। যা নিয়ে বাম এবং কংগ্রেসের পক্ষ থেকে নরেন্দ্র মোদি এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যেকার সমঝোতার কথা বারে বারে তুলে ধরা হয়েছে। কিন্তু এবার বিধানসভা নির্বাচন এগিয়ে আসতে না আসতেই যেভাবে সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে আবার নতুন করে এই ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া হল, তাতে প্রতিহিংসার রাজনীতির অভিযোগ তুলছে তৃণমূল কংগ্রেস। সব মিলিয়ে বাংলার মাটিতে সিবিআইয়ের চার প্রভাবশালীর হাতে‌ নোটিশ ধরানোয় নতুন করে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!