এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > ভিডিও চ্যাট অ্যাপে জ্বলজ্বল করছে তৃণমূল সাংসদ নূসরাত জাহানের ছবি! পুলিশের দ্বারস্থ অভিনেত্রী

ভিডিও চ্যাট অ্যাপে জ্বলজ্বল করছে তৃণমূল সাংসদ নূসরাত জাহানের ছবি! পুলিশের দ্বারস্থ অভিনেত্রী



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট- বর্তমানে জনপ্রিয় সাংসদ অভিনেত্রী নুসরত জাহান সোশ্যাল মিডিয়ায় যে অ্যাক্টিভ একজন তৃণমূলের সদস্য, সেকথা তিনি ভালোমতোই বুঝিয়ে দেন তাঁর কার্যকলাপে। সেটা বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় হোক বা যেকোনো সামাজিক উৎসবের শুভেচ্ছা জানানোতই হোক। পিছিয়ে থাকেন না কোন দিক থেকেই। সম্প্রতি যেমন বিজেপি বাহিনীকে কটাক্ষ করেছেন তিনি কৃষি বিলের বিরোধিতা করা নিয়ে। কারণ ইতিমধ্যেই কৃষি বিলের বিরোধিতা করায় ডেরেক ও’ব্রায়েন সহ তৃণমূলের যে ৮জন সাংসদকে বরখাস্ত করা হয়েছে, সেই নিয়ে সরব হয়েছেন তিনি। স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, বিজেপি এভাবে গণতন্ত্রকে হত্যা করার চেষ্টা করছে। বিজেপির এই আস্ফালন কোনোভাবেই মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। তবে তিনিও চুপ করে থাকবেন না। এর প্রতিবাদ তিনি করবেনই।

তবে সম্প্রতি অভিনেত্রীকে নিয়ে জানা গেছে, বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য। তবে সেগুলি রাজনীতির দুনিয়ায় নয়, ঘটেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। জানা গেছে, অনুমতি ছাড়াই সাংসদ তথা অভিনেত্রীর ছবি ব্যবহার করা হচ্ছে একটি ভিডিও চ্যাট অ্যাপে। এবং তা নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হওয়ায় অভিনেত্রীর কাছে খবর পৌঁছায় এবং ঘটনাটির সত্যতা বিচার করে তিনি বর্তমানে কলকাতা পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন বলেও জানা যায়।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

সেলিব্রেটি অভিনেত্রীদের জীবনে এমন অনলাইনে একাউন্ট খুলে তাদের নামে অপরাধমূলক কাজ করা বা বিভিন্ন কুরুচিকর মন্তব্য করার মতো ঘটনা ঘটেই থাকে। পরবর্তীকালে তার খবর পেয়ে অনেকেই আগেভাগে সতর্ক করে দেন অনুরাগীদের। এক্ষেত্রেও দেখা যায় ফ্যান্সি ইউ নামের একটি চ্যাটিং অ্যাপের বিবরনে ব্যবহার করা হয়েছে অভিনেত্রীর নাম। আর তাই নিয়েই শুরু হয় জল্পনা। প্রকাশিত সেই বিজ্ঞাপনে দেখা গেছে অভিনেত্রীর সঙ্গে সেখানে উপস্থিত ছিলেন আরও একটি মেয়ে। তবে এমনভাবে বিজ্ঞাপন দেওয়ার ক্ষেত্রে যে কারো অনুমতি নিতে হয়, অনুমতি ছাড়া যে কোনভাবেই কারোর ব্যক্তিগত ছবি এভাবে কোনো বিজ্ঞাপনে কাজে লাগানো যায় না, সেই প্রশ্ন তুলে ধরে নেট দুনিয়ায় সরব হয়েছেন তিনি। এবং সম্প্রতি সেই নিয়ে কলকাতা পুলিশের জানিয়ে তাদের দ্বারস্থ হয়েছেন।

অভিনেত্রী সোশ্যাল মিডিয়ায় টুইট করে জানিয়েছেন এই ধরনের কাজকে কোন মতেই মেনে নেওয়া যায় না। তাই এমন ভাবে তাঁর অনুমতি ছাড়া কিভাবে কেউ তাঁর ছবি ব্যবহার করছে, এই নিয়ে তিনি বিস্মিত। সম্প্রতি তিনি তাই কলকাতা পুলিশের সাইবার ক্রাইমের বিভাগকে এ বিষয়ে তদন্ত করার জন্য আর্জি জানিয়েছেন, যাতে দয়া করে তাঁরা যেন সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পদক্ষেপ করেন। সেইসঙ্গে প্রয়োজনে আইনি ব্যবস্থা নিতেও যে তিনি প্রস্তত সেই কথা জানিয়েছেন তিনি। তবে এখনো পর্যন্ত পুলিশের তরফ থেকে তদন্তের বিষয়ে কারো নাম উঠে না আসলেও শীঘ্রই যে এর সমাধান করা সম্ভব হবে, সেই আশ্বাসই পাওয়া গেছে তদন্তকারীদের তরফ থেকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!