এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > ভ্যাক্সিনেশন সেন্টারে মদের আসর, পুরসভা নিশ্চুপ, অভিযোগ সাধারণ মানুষের

ভ্যাক্সিনেশন সেন্টারে মদের আসর, পুরসভা নিশ্চুপ, অভিযোগ সাধারণ মানুষের



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – দিনের বেলা যেখানে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে, রাতের বেলা সেখানেই বসছে মদের আসর। কার্যত এরকমই একটি ঘটনা নিয়ে জোরদার চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে জলপাইগুড়ির ধুপগুড়ি পুরসভা এলাকায়। করোনা পরিস্থিতিতে ভ্যাকসিনেশনের কাজের জন্য ব্যবহার হচ্ছে ধুপগুড়ি শহরের ঘোষপাড়া মোড়ের পুরসভার দ্বিতীয় অফিসটি। সাধারণ মানুষের অভিযোগ, এই অফিসেই সকালবেলা যেরকম ভ্যাকসিনেশনের কাজ হচ্ছে সন্ধ্যে নামতে না নামতেই ভ্যাক্সিনেশন সেন্টার পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে মদের আসরে। আর তাই নিয়েই সাধারণ মানুষের ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ্যে এসেছে।

কার্যত এলাকাবাসীরা জানিয়েছেন, পুরসভা কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার ফলে এ ধরণের অসামাজিক কাজ হচ্ছে জনসমক্ষে। দিনের বেলা পুরসভার অফিস চত্বরে দেখা যাচ্ছে, যত্রতত্র মদের বোতল ছড়িয়ে থাকতে। দীর্ঘদিন ধরে একই কাজ হলেও পুরসভা কর্তৃপক্ষের কোন নজর নেই বলে অভিযোগ উঠেছে। ভ্যাক্সিনেশন নিতে যখন সকালবেলা পুরসভার অফিসে ঢুকতে হচ্ছে, তখনই মদের বোতলগুলি নজরে আসছে। প্রতিদিন শয়ে শয়ে মানুষ ধূপগুড়ি পুরসভার ঘোষপাড়া মোড়ের দ্বিতীয় অফিসটিতে আসছেন। এবং মানুষের চোখে পড়ছে এই মদের বোতলের সমাহার।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু পুরসভা এ ব্যাপারে নজর দিচ্ছেনা। বরং প্রশ্ন করলে পাল্টা এই প্রসঙ্গ এড়িয়ে সাধারণমানুষ-এর একাংশের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলছে। প্রসঙ্গত পুরসভার ভাইস-চেয়ারম্যান রাজেশ কুমার সিং কে এ ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানিয়েছেন, কেউ বাইরে থাকে মদ খেয়ে ভেতরে মদের বোতল ফেলে যাচ্ছে। পুরসভা দিনের পর দিন ভালো কাজ করছে। তাই সাধারণ মানুষ যখন পুরসভার কাজকে প্রশংসা করছে, তখন একশ্রেণীর মানুষ পুরসভার বদনাম করতে চাইছে।

তবে তিনি জানিয়েছেন, পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। শীঘ্রই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে, তা নিয়ে কিছু জানা যায়নি। অন্য দিকে শহরবাসী ভাইস চেয়ারম্যানের কথা একেবারেই খারিজ করে দিয়েছে। বরং সাধারণ মানুষের দাবি, রাতের বেলা ওই অফিসেই মদের আসর বসছে। খুব স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অভিযোগের আঙুল উঠেছে প্রশাসনের দিকে। কার্যত প্রশাসন এই পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষের ক্ষোভের প্রশমন করতে কি ব্যবস্থা গ্রহণ করে, সেটাই এখন দেখার।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!