এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > উন্নয়নের খরচের হিসাব চাইতেই বিজেপির জনপ্রতিনিধিদের বের করে দেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

উন্নয়নের খরচের হিসাব চাইতেই বিজেপির জনপ্রতিনিধিদের বের করে দেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – পশ্চিমবঙ্গের আগামী ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে পশ্চিমবঙ্গের শাসকদল তৃণমূল ও প্রধান বিরোধী দল বিজেপির মধ্যে পরস্পর চাপান-উতোর, অভিযোগ বর্ষণ, অভিযোগ খন্ডন ও অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়েরের বাড়বাড়ন্ত চোখে পড়ছে। গতকাল মঙ্গলবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বাগদা পঞ্চায়েত সমিতির সাধারণ সভাকে কেন্দ্র করে প্রবল বিতর্ক, উত্তেজনার সৃষ্টি হলো তৃণমূল ও বিজেপি পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যদের মধ্যে। বিজেপি সদস্যদের সভাস্থল থেকে অপমান করে বের করে দেয়ার অভিযোগ করেছে বিজেপি তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

স্থানীয় সূত্রের খবর, গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে বাগদা পঞ্চায়েত সমিতির পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের টাকায় এলকার উন্নয়নের কাজের পর্যালোচনা করতে একটি সাধারণ সভার আয়োজন করা হয়েছিল। এই সভায় তৃণমূল দলের সদস্যরা ছাড়াও বিজেপি দলের ৬ জন পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও এই সভায় পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ও বিডিও উপস্থিত ছিলেন ।এদিনের সভা শুরু হলে বিজেপি সদস্যরা প্রথমে রেজলিউশন খাতায় সাক্ষ্যর দানে অসম্মত হন।

এরপরেই বিজেপি সদস্যরা পঞ্চায়েতের বিভিন্ন খাতে উন্নয়নের খরচের পূর্ণাঙ্গ হিসাব দাবি করেন। সেইসঙ্গে কোন কোন স্থানে কতগুলি তারপোলিন বিলি করা হয়েছে তার হিসেবও দাবি করেন তাঁরা। অভিযোগ উঠেছে এরপরেই তৃণমূল সদস্যরা সকলের সামনে বিজেপির পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যদের অপমান করেন ও তাদের কোন তথ্য জানানো হবে না বলে জানান। এমনকি তাঁদেরকে সভাস্থল থেকে বের করে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এরপর বিজেপি সদস্যরা পঞ্চায়েত সমিতির সামনে বিক্ষোভ দেখান।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

গতকালের ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপির বাগদা পঞ্চায়েত সমিতির জনৈক সদস্য বিধান হাওলাদার বলেছেন, ” আমাদের সদস্য কম বলে ওরা কোনও তথ্য দেয় না। গত কয়েক মাসের খরচের খতিয়ান ও তারপোলিন বিলির তথ্য জানতে চাওয়ায় আমাদের অপমান করে সভা থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে।”

তবে তৃণমূলের পক্ষ থেকে তাদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে বাগদা পঞ্চায়েত সমিতির তৃণমূলী সভাপতি গোপা রায় বলেছেন, ” আগে থেকে বৈঠকের কথা না জানানোর অভিযোগ ভিত্তিহীন। এদিন বৈঠকের বিষয় ছিল পঞ্চাদশ অর্থ কমিশনের টাকায় উন্নয়নমূলক পরিকল্পনা। কিন্তু ওই বৈঠকে ওনারা অপ্রাসঙ্গিক কথা বলে ঝামেলা তৈরি করেন। আমি নিজে এবং বিডিও সাহেব সভায় আসার অনুরোধ করলেও ওঁরা কোনও কথা না শুনে বেরিয়ে যান।”

গতকালের সাধারণ সভায় অপমানিত ও ক্ষুব্ধ বিজেপি সদস্যরা পঞ্চায়েত সমিতির সামনে বিক্ষভ ও ধর্ণার আয়োজন করেন। পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি এবং বিডিও তাদের শান্ত করতে গিয়েও ব্যর্থ হন। বিজেপি সদস্যরা অভিযোগ করেছেন যে, তাদের সদস্য সংখ্যা কম থাকায় শাসক দল কখনই তাদের কোন তথ্য জানায় না। জোর করে তথ্য জানতে চাইলে প্রশাসনিক কর্তাদের সামনেই তাদের অসম্মান করে বের করে দেয়া হয়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!