এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উল্টো পুরাণ,আরএসএস-এর সভায় কংগ্রেসের প্রশংসা করে বিতর্ক বাড়ালেন মোহন ভাগবত

উল্টো পুরাণ,আরএসএস-এর সভায় কংগ্রেসের প্রশংসা করে বিতর্ক বাড়ালেন মোহন ভাগবত



যে সম্প্রীতির নীতিকে হাতিয়ার করে লোকসভার বাদল অধিবেশন বিজেপিকে ছাপিয়ে যাওয়ার ফিরিক খুঁজেছিলেন জাতীয় কংগ্রেস সুপ্রিমো,এবার সেই হাতিয়ারকেই কংগ্রেস দমনে কাজ লাগাতে দেখা গেল সরসংঘপ্রধান মোহন ভাগবতকে। সংসদে অধিবেশন চলাকালীন নিজের জায়গা থেকে উঠে এসে রাহুল গান্ধীর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আলিঙ্গণ করার ঘটনাটি আজও জাতীয় রাজনীতির বহু চর্চিত বিষয়। এবার সেই চর্চাতেই আরো বাড়তি মাত্রা জুড়ল আরএসএস।

সংঘের তিনদিনের আয়োজিত কনক্লেভে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল দেশের সব বিরোধীদলের শীর্ষ নেতাদের। আমন্ত্রিতদের তালিকায় ছিলেন কংগ্রেসের বরিষ্ঠ নেতা জয়রাম রমেশ এবং শশি থারুর। তবে বিরোধীদের তরফ থেকে আমন্ত্রণের কোনোরকম ইতিবাচক সাড়া পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে বিজেপি নেতারা বিরোধীদের সমালোচনাও করেছেন। তাঁদের দাবী,মুখের বহুত্ববাদের বুলি আওড়ালেও কাজে সেটা করা হচ্ছে না। আরএসএসের মতবাদকে গ্রহণ করা তো দূরের কথা শোনার প্রয়োজন মনে করছে না বিরোধীরা। বিরোধীদের এই দ্বিচারী আচরণের তীব্র নিন্দা করলেন গেরুয়াশিবির কর্তারা।

অন্যদিকে,কনক্লেভের প্রথমদিনের ভাষণেই বিতর্কিত মন্তব্যে সবার নজর কাড়লেন মোহন ভাগবত। বিরোধীরা সংঘের আমন্ত্রণে সাড়া না দিলেও তাঁদের লাগামছাড়া প্রশংসা করলেন তিনি। দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের সময় বিভিন্ন ধরণের মতাদর্শের কথা বক্তব্যে বলতে গিয়ে ভাগবত কংগ্রেসের ভূমিকার কথা স্বীকার করেন। তুলে ধরেন কংগ্রেসের অসংখ্য সর্বত্যাগী মনিষীর অবদানের কথা। তাঁরা কীভাবে স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতৃত্ব দিয়েছেন,সাধারণ মানুষকে বিপ্লবে উজ্জীবিত করেছেন এসব কথা তুলে ধরলেন এদিন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বললেন, ‘আমাদের স্বাধীনতার ইতিহাসে কংগ্রেসের বড় হাত রয়েছে।’ শুধু কংগ্রেসের প্রশংসা করেই ক্ষান্ত হননি তিনি। তাঁর মুখে শোনা গেল কংগ্রেসের আপ্তবাক্যও। বললেন, “ভারত বহুত্ববাদের দেশ,আমাদের উচিত এই বহুত্ববাদকে গ্রহন করা, এবং উপভোগ করা।” বক্তব্যে আরো জানালেন, আরএসএসের উন্নতির জন্য আরো অনেক সদস্যের দলভুক্ত হওয়া প্রয়োজন। এ প্রসঙ্গে তিনি আরএসএসে মহিলাদের অংশগ্রহনও অকপটে স্বীকার করে নিলেন। তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবী, জাতীয় রাজনীতিতে সংঘের গ্রহনযোগ্যতা বাড়াতেই বিরোধীদের প্রশংসায় মাতলেন সংঘপ্রধান। মোহন ভাগবতেই এদিন ভাষণের পর কংগ্রেসের তরফ থেকে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে পাল্টা রাজনৈতিক আক্রমণ শানাতে তাঁরা তৈরি হচ্ছে অন্দরে,এমনটা জল্পনা রয়েছে রাজনৈতিকমহলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!