এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > আবার খারাপ খবর তৃণমূল পরিবারে! আবারো করোনা আক্রান্ত এক হেভিওয়েট বিধায়ক, ক্রমশ বাড়ছে দুশ্চিন্তা

আবার খারাপ খবর তৃণমূল পরিবারে! আবারো করোনা আক্রান্ত এক হেভিওয়েট বিধায়ক, ক্রমশ বাড়ছে দুশ্চিন্তা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট রাজ্য জুড়ে করোনা চিত্রটি এই মুহূর্তে ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করেছে। পরিস্থিতি যে যথেষ্ট আশঙ্কাজনক সে বিষয়ে নিঃসন্দেহ সবাই। প্রায় প্রতিদিন রেকর্ডহারে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। অবস্থা সামাল দিতে রাজ্য সরকার এবার প্রতি সপ্তাহে দুদিন রাজ্য জুড়ে পূর্ণ লকডাউনের ঘোষণা করেছে। কিন্তু পরিস্থিতি এই মুহূর্তে যে ক্রমশ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে সে কথা এক বাক্যে স্বীকার করে নিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

অন্যদিকে শাসকদলের চিন্তা বাড়াচ্ছে করোনা। কারণ করোনা এবার হানা দিয়েছে রাজনৈতিক অন্দরেও। একের পর এক শাসকদলের মন্ত্রী থেকে কর্মী করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। আর এবার দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন কোচবিহারের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ। কোচবিহার জেলার দিনহাটা শহর এবং দিনহাটা দু’নম্বর ব্লক ইতিমধ্যেই করোনা সংক্রমণের বাড়বাড়ন্তের ফলে অনির্দিষ্টকালের জন্য কনটেইনমেন্ট জোনে পরিণত হয়েছে।

সম্প্রতি উদয়ন গুহ নিজেই তাঁর করোনা হয়েছে বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। কিছুদিন আগেই কোচবিহার পুরসভার প্রশাসক ভূষণ সিংও করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। সোমবার পূর্ব মেদিনীপুরের এগরার তৃণমূল বিধায়ক সমরেশ দাস করোনা আক্রান্ত হয়ে পাঁশকুড়ার কোভিড হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে জানা গেছে। কিছুদিন আগেই দক্ষিণ দিনাজপুরের কুমারগঞ্জ এর বিধায়ক তোরাফ হোসেন মণ্ডল আক্রান্ত হয়েছিলেন করোনায়। একের পর এক জনপ্রতিনিধি করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ফলে রীতিমতো চিন্তা বাড়ছে তৃণমূল শিবিরের।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

উল্লেখ্য, এর আগে ফলতার তৃণমূল বিধায়ক তমোনাশ ঘোষের প্রাণ নিয়েছে করোনা। অন্যদিকে রাজ্যের দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু, পানিহাটির বিধায়ক তথা বিধানসভার তৃণমূলের মুখ্য সচেতক নির্মল ঘোষও আক্রান্ত হয়েছিলেন করোনায়। যদিও এরা দুজনেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। অন্যদিকে রাজ্যের স্বাস্থ্য বুলেটিন অনুযায়ী জানা গিয়েছে, গত 24 ঘন্টায় রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়েছে 2261 জন। এর ফলে এখনো পর্যন্ত রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে 47 হাজার 30।

করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা এখনো পর্যন্ত 1182। তবে গত 24 ঘন্টায় করোনার হাত থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন 1617 জন। আর এখনো পর্যন্ত রাজ্যে সুস্থতার সংখ্যা এসে দাঁড়িয়েছে 28 হাজার 35। এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা অ্যাক্টিভের সংখ্যা 17 হাজার 813 জন। ডিসচার্জের হার ঘোরাফেরা করছে 60% এর আশেপাশে। অন্যদিকে রাজ্যের করোনা পরিস্থিতির দিকে নজর রেখে সাধারণের মনে চরম আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে বিতর্ক শুরু হয়েছে রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে।

অনেকেই দাবী করছেন, করোনা আক্রান্ত হলেও রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা ঠিকঠাক মিলছে না। বিরোধীরাও এই নিয়ে শাসকদলের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছে। আর এর মধ্যেই নতুন বিতর্ক শুরু হয়েছে রাজ্যে দুদিনের লকডাউন নিয়ে। এক্ষেত্রে দুদিনের লকডাউন পালনে করোনাকে কতটা ঠেকানো যাবে তাই নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। এই অবস্থায় রাজ্যের বেহাল করোনা পরিস্থিতিকে কিভাবে ঠেকিয়ে রাখতে সমর্থ হয় রাজ্য সরকার, এখন সেদিকেই কড়া নজর সবার।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!