এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > তৃণমূল ও বিজেপিকে একই আসনে বসিয়ে তুমুল সমালোচনা নেত্রীর

তৃণমূল ও বিজেপিকে একই আসনে বসিয়ে তুমুল সমালোচনা নেত্রীর



সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ও জাতীয় নাগরিক পঞ্জি নিয়ে ইতিমধ্যে দেশজুড়ে বিক্ষোভের ঝড় বয়ে যাচ্ছে। মানুষের ক্ষোভ ক্রমশ বেড়ে উঠছে। অন্যদিকে, পশ্চিমবঙ্গ নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় পিছিয়ে নেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে রাজপথে মিছিল করেছেন তিনি, গর্জে উঠেছেন মোদি সরকারের বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যে তৃণমূল দলের পক্ষ থেকে রাজ্যজুড়ে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এর বিরুদ্ধে প্রচার চালানো হচ্ছে। তবে এবার মুখ্যমন্ত্রীর সুরে সুর মেলালেন আর এস পির মহিলা সংগঠনের রাজ্য সম্পাদিকা সর্বাণী ভট্টাচার্য্য। তবে এক্ষেত্রে কিছুটা ব্যতিক্রম আছে।

এদিন বালুরঘাটে নিখিল বঙ্গ মহিলা সংঘের রাজ্য সম্মেলনের প্রকাশ্য সভায় বক্তব্য রাখেন আরএসপির মহিলা সংগঠনের সম্পাদিকা সর্বাণী ভট্টাচার্য্য। তিনি এই সভাতে তৃণমূলের সাথে গলা মিলিয়ে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এর প্রতিবাদ করলেও তৃণমূলকে বিজেপির দোসর হিসেবেই অভিহিত করেছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এনআরসি কোনও মতেই হতে দেওয়া হবে না। এমনকি এব্যাপারে কোনও কাগজও দেখানো হবে না। কারণ, কাগজ শুধুই বড়লোকদের জন্য। গরিবের কোনও কাগজ থাকে না। থাকলেও ভুলে ভরা সেই কাগজের কারণে এনআরসিতে গরিবকে ডিটেনশন ক্যাম্পে পাঠানো হলে তার দায়ভার কে নেবেন।’

অন্যদিকে এদিন তিনি তৃণমূল ও বিজেপিকে একই আসনে বসিয়ে তীব্র সমালোচনা করেন। এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে সর্বাণী ভট্টাচার্য্য বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী কাগজ না দেখানোর কথা বলে গরিব সাধারণ মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছেন। তাঁর অভিযোগ, মুখে কাগজ না দেখানোর কথা বললেও আরেক দিকে তিনি অফিসারদের এনপিআর এর ট্রেনিং দিচ্ছেন।’ সাম্প্রতিককালে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য জুড়ে বিজেপির বাড়বাড়ন্তের কারণ হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই সম্পূর্ণ দায়ী করেছেন আরএসপির রাজ্য সম্পাদিকা।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন বালুরঘাটে আরএসপি আয়োজিত শনি ও রবিবার দুদিনের রাজ্য সম্মেলন ছিল। এই সম্মেলনে রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে আরএসপির প্রতিনিধিরা অংশ নেন। এদিন বালুরঘাটের জেলা মিউজিয়াম লাগোয়া রাস্তায় প্রকাশ্যে সভা করা হয়। সেখানে বক্তৃতা দিয়েছেন রাজ্য সম্পাদিকা সর্বাণী ভট্টাচার্য্য। এছাড়াও সভায় উপস্থিত ছিলেন সুচেতা বিশ্বাস সহ অনেকেই। এদিন অন্যান্য বক্তাদের মধ্যে হাজির ছিলেন আরএসপির রাজ্য সম্পাদক প্রাক্তন মন্ত্রী বিশ্বনাথ চৌধুরী এবং রাজ্যসভার প্রাক্তন সাংসদ মনোজ ভট্টাচার্য্য। উল্লেখ্য, এদিন সভার আগে আরএসপির সম্মেলন উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয় বালুরঘাট শহর জুড়ে।

বিগত কয়েক দিন ধরেই দেশের রাজনীতি নাগরিকত্ব ইস্যুতে উত্তাল। অন্যদিকে, পশ্চিমবঙ্গ লাগোয়া আন্তর্জাতিক দেশ বাংলাদেশ হওয়াতে পশ্চিমবঙ্গে এনআরসি আতঙ্ক ছড়িয়েছে অত্যাধিক। তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, যেভাবে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে একের পর এক বিক্ষোভ কর্মসূচি চলছে, তা সামাল দিতে ইতিমধ্যে বিজেপি সরকার হিমশিম খাচ্ছে। এদিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়সহ অন্যান্য দলগুলিও বিজেপির বিরুদ্ধে তুমুল আন্দোলন শুরু করেছে রাজ্যে। আপাতত রাজনৈতিক পরিস্থিতি কোন দিকে মোড় নেয় পশ্চিমবঙ্গে সেদিকে নজর রাখছে রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!