এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > তৃণমূল নেত্রীর ডাক ফেরালেন শুভেন্দু অনুগামী নেতা, শুরু তীব্র বিতর্ক, চলছে দলবদলের জল্পনা

তৃণমূল নেত্রীর ডাক ফেরালেন শুভেন্দু অনুগামী নেতা, শুরু তীব্র বিতর্ক, চলছে দলবদলের জল্পনা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যের জেলায় জেলায় একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে দেখা যাচ্ছে শাসক শিবিরে নেমেছে ধ্বস। একের পর এক নেতা, মন্ত্রী, সাংসদ, বিধায়ক দল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন। এই অবস্থায় মুর্শিদাবাদ জেলায় তৃণমূলের সংগঠন বাঁচাতে তড়িঘড়ি তৃণমূল কংগ্রেস ভবনে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকের ডাক দিয়েছিল তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। এই বিশেষ বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারেন স্বয়ং তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু নেত্রীর ডাকে সাড়া দিলেন না তৃণমূলে থাকা শুভেন্দু অনুগামী নেতা। যথারীতি এই নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে শুরু হয়েছে তীব্র চাঞ্চল্য। প্রসঙ্গত জানা যাচ্ছে, মুর্শিদাবাদ জেলায় আবু তাহের এবং মোশারফ হোসেনের দ্বন্দ্বের কারণে বিব্রত জেলা নেতৃত্ব।

এই গোষ্ঠী কোন্দল মেটাতেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ডাক দিয়েছিলেন মুর্শিদাবাদ জেলা নেতৃত্বকে। কিনতি তৃণমূল নেত্রী ডাক দিলেও এদিন শুভেন্দু অনুগামী তৃণমূল নেতা মোশারফ হোসেন বৈঠকে যোগ না দিয়ে নিজের বাড়িতে থেকে বিতর্কের জন্ম দিয়েছেনবলে মনে করা হচ্ছে। খুব স্বাভাবিকভাবেই কংগ্রেস থেকে শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে তৃণমূলে প্রবেশ করা নেতার এহেন আচরণ বেশ কিছু প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে কি মোশারেফ হোসেন শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে হাত মিলিয়ে বিজেপিতে যেতে চলেছেন, নাকি তৃণমূল ছেড়ে তিনি আবার কংগ্রেসে যোগ দেবেন? যদিও এর উত্তর এখনও স্পষ্ট নয়।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

উল্লেখ্য, মুর্শিদাবাদ জেলার পর্যবেক্ষক হিসেবে ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী একসময়। তাই খুব স্বাভাবিকভাবেই এই জেলায় শুভেন্দুর অনুগামী সংখ্যা নেহাত কম নয়। তৃণমূল শিবিরের অন্দরের অনেকেই মনে করছেন, এই অনুগামীরা কিন্তু একুশের বিধানসভা নির্বাচনে মুর্শিদাবাদ জেলায় যথেষ্ট প্রভাব ফেলতে পারে। অন্যদিকে মুর্শিদাবাদ জেলার সংখ্যালঘু সংগঠনকে তাক করে বসে আছেন আসাদউদ্দিন ওয়েইসির দল মিম এবং আব্বাস সিদ্দিকীর নতুন দল। খুব স্বাভাবিকভাবেই এই জেলায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের দিকে হাত বাড়িয়ে যদি মিম বা আব্বাস প্রার্থী দেন, তাহলে কিন্তু তৃণমূলের ভোট ব্যাংকে বড়সড় ফাটল যে ধরবে তা নিশ্চিত বলা যায়।

তবে তৃণমূলও পিছিয়ে যেতে রাজি নয়। তাই মুর্শিদাবাদ জেলার সংগঠনকে আবার একজোট করতে তৃণমূল নেতৃত্ব বৈঠকে ডেকেছিলেন। বিকেলে তৃণমূল ভবনে এই বৈঠক হওয়ার কথা। প্রসঙ্গত জানা গেছে, মুর্শিদাবাদ জেলার তৃণমূল শিবিরকে চাঙ্গা করতে দলের শীর্ষ নেতারা বার্তা দেবেন। কিন্তু এক্ষেত্রে দেখা গেল, তৃণমূলের সংগঠনিক পরিস্থিতি এতটাই ভেঙে পড়েছে, যেখানে শীর্ষ নেতৃত্ব ডাক এলেও তা ফিরিয়ে দিচ্ছেন দলের নেতা। যথারীতি এই নিয়ে ইতিমধ্যেই গুঞ্জন শুরু হয়েছে তৃণমূল শিবিরের অন্দরে। অন্যদিকে মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল সংগঠনকে আরও সংঘবদ্ধ করতে নেত্রী কি ব্যবস্থা নেন, সেদিকেই নজর রেখেছে রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহল।

 

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!