এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > তৃণমূল নেত্রীকে সমর্থন করায় সমাজবাদী পার্টির নেত্রীকে একহাত নিলেন বিজেপি সাংসদ

তৃণমূল নেত্রীকে সমর্থন করায় সমাজবাদী পার্টির নেত্রীকে একহাত নিলেন বিজেপি সাংসদ



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – একদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়সহ তাঁর সেনারা যখন ব্যাপকভাবে জনসংযোগ চালাচ্ছেন, তখন পিছিয়ে নেই গেরুয়া শিবিরও। অন্যতম বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় এবারের নির্বাচনে চুঁচুড়ার বিজেপি প্রার্থী। সেক্ষেত্রে তিনি জনসংযোগের বিন্দুমাত্র সুযোগ ছাড়তে রাজি নন। এতদিন পর্যন্ত তাঁকে কখনো রাস্তাঘাট খারাপ হওয়ার অভিযোগে গরুর গাড়িতে দেখা গিয়েছে, কখনো মহিলাদের উপর অত্যাচারের প্রতিবাদে নৌকায় চাপতে দেখা গিয়েছে। আর এবার তিনি রীতিমতো লোকাল ট্রেনে চড়ে বসলেন জনসংযোগ করতে। জনসংযোগের এই পর্বে লকেট চট্টোপাধ্যায় একহাত নিলেন রাজ্যে তৃণমূলের হয়ে প্রচারে আসা সমাজবাদী পার্টির নেত্রী জয়া বচ্চনকে।

সম্প্রতি সমাজবাদী পার্টির তরফ থেকে অখিলেশ যাদবের নির্দেশে জয়া বচ্চন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সমর্থন করতে এসেছেন রাজ্যে। এবং আসার পরেই তিনি রীতিমতো সাংবাদিক বৈঠক করে বিরোধী শিবিরকে তুলোধোনা করেন। মমতা বন্দোপাধ্যায়কে বিরোধীদের বিভিন্নভাবে কটাক্ষ করাকে লজ্জার নামান্তর দিয়েছেন জয়া বচ্চন। লকেট চট্টোপাধ্যায় এদিন সকাল সকাল সঙ্গী-সাথীদের নিয়ে টিকিট কেটে ট্রেনে উঠেছিলেন জনসংযোগের উদ্দেশ্যে।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

লকেটের মতে, জনসংযোগের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ জায়গা লোকাল ট্রেন। সেসময় ওঠে জয়া বচ্চনের প্রসঙ্গ এবং লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন যখন রাজ্যে করোনা কিংবা আম্ফান হয়েছিল, তখন জয়া বচ্চন কোথায় ছিলেন? পাশাপাশি তিনি জয়া বচ্চনকে সম্মান জানিয়ে বলেন, বাংলার মহিলা জয়া বচ্চন এবং তাঁকে প্রচন্ডভাবে অ্যাডমায়ার করেন লকেট। কিন্তু বাংলার রাজনীতির সঙ্গে জয়া বচ্চনের যে বিন্দুমাত্র সম্পর্ক নেই সে কথাও জানান তিনি। পাশাপাশি জয়া বচ্চনের সুস্থতা কামনা করেছেন এদিন চুঁচুড়ার বিজেপি প্রার্থী। উল্লেখ্য আগামী 10 এপ্রিল হুগলীর চুঁচুড়ায় ভোটগ্রহণ।

লকেটের বিরুদ্ধে ওই আসনে তৃণমূলের হয়ে দাঁড়িয়েছেন অসিত মজুমদার। তিনি চুঁচুড়া থেকে এর আগে জয়ী হয়েছিলেন এবং বামেদের হয়ে লড়ছেন ডক্টর প্রণব কুমার ঘোষ। বিশেষজ্ঞদের মতে, এই আসনে এবার হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে চলেছে। বিজেপি প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায় নিজের জয়ের ক্ষেত্রে কোনরকম খামতি রাখতে চাইছেন না তাঁর প্রচারে। আপাতত রাজ্যজুড়ে বিধানসভা নির্বাচনের নিরিখে এবার নজর চতুর্থ পর্বে। তিনদফা নির্বাচনে এখনো পর্যন্ত অশান্তির হাত থেকে বাঁচতে পারেনি রাজ্য। তাই এবার দেখার চতুর্থ পর্ব সামলাতে নির্বাচন কমিশন কি ব্যবস্থা গ্রহণ করে!

 

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!