এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূল বনাম বিজেপি না কুণাল বনাম শোভন- লড়াইয়ের অভিমুখ ক্রমশ বদলাচ্ছে রাজ্যে

তৃণমূল বনাম বিজেপি না কুণাল বনাম শোভন- লড়াইয়ের অভিমুখ ক্রমশ বদলাচ্ছে রাজ্যে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – শোভন চট্টোপাধ্যায় গেরুয়া শিবিরের সক্রিয় হওয়ার পরে পরেই তীব্র বাকবিতণ্ডা শুরু হয়েছে তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ ও বিজেপি নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মধ্যে। কখনো একজন বলছেন ‘গ্ল্যাক্সো বেবি’, তো কখনো অন্যজন বলছেন ‘পকেটমার’। দুজনের ধুন্ধুমার বাকযুদ্ধে সরগরম বাংলার রাজনীতি। পাশাপাশি একুশের বিধানসভার নির্বাচন নিয়ে ইতিমধ্যেই তেতে উঠেছে রাজ্যের পরিবেশ। খুব স্বাভাবিকভাবেই দুই নেতার লড়াই ক্রমশ দুই শিবিরের লড়াই হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর এবার মৌখিক আক্রমণ গিয়ে দাঁড়াতে চলেছে আদালত চত্বরে।

সূত্রের খবর, কলকাতার প্রাক্তন মেয়র তথা প্রাক্তন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে এবার মানহানির মামলা করতে চলেছেন তৃণমূল মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। প্রসঙ্গত বৃহস্পতিবার বিজেপির সাংবাদিক বৈঠক থেকে কুণালকে সরাসরি আক্রমণ করে শোভন চট্টোপাধ্যায় ‘পকেটমার’ শব্দটি প্রয়োগ করেন। পাশাপাশি সুদীপ্ত সেনের সঙ্গে কুণাল ঘোষের যোগাযোগের প্রসঙ্গটি তুলে ‘দালাল’ বলে কুণাল ঘোষকে অভিহিত করেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। এর আগেও কুণাল ঘোষকে শোভন ‘ক্রিমিনাল’ বলেও অভিহিত করেছেন।

এইসবের জবাব দিতে কুণাল ঘোষ এবার শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে চলেছেন বলে জানা গিয়েছে। এ প্রসঙ্গে কুনাল ঘোষ জানিয়েছেন, কিছুদিনের মধ্যেই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের কাছে নোটিশ যাবে তাঁর আইনজীবীর পক্ষ থেকে। অন্যদিকে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের পক্ষ থেকে এখনো পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। লড়াইটা শুরু হয়েছিল গত সোমবার থেকে। দলীয় মঞ্চ থেকে শোভন চট্টোপাধ্যায় কুনাল প্রসঙ্গ টেনে আনেন। পাশাপাশি তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পায়ের তলার মাটি সরে গিয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর সেক্ষেত্রে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে সাক্ষী দেওয়া কুণাল ঘোষকে দলের মুখপাত্র নিয়োগ করা নিয়েও তীব্র কটাক্ষ করেন তিনি। যথারীতি এরপর কুনাল ঘোষও চুপ করে বসে থাকেননি। তিনিও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘গ্ল্যাক্সো বেবি’ বলে তীব্র কটাক্ষ করেন। যথারীতি এরপর শোভন চট্টোপাধ্যায়ের প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। তাঁর আক্রমণের ধার ছিল আরও জোরদার। যথারীতি শোভন চট্টোপাধ্যায় কুণাল ঘোষকে চিটফান্ড কেলেঙ্কারি নিয়ে আক্রমণ করেন। এই প্রসঙ্গে কুনাল ঘোষের জন্য ‘দালাল’ শব্দের প্রয়োগ করেন শোভন চট্টোপাধ্যায়।

রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, তৃণমূল বনাম বিজেপির লড়াই ক্রমশ শুভেন্দু বনাম মমতা হয়ে এবার কুনাল বনাম শোভন হয়ে উঠেছে। উল্লেখ্য, কুনাল ঘোষ শুধুমাত্র দলীয় মঞ্চ থেকে কিংবা সাংবাদিক সম্মেলনে শোভন চট্টোপাধ্যাযকে আক্রমণ করেই থেমে যাননি। পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াতেও চালিয়েছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়কে কড়া ভাষায় আক্রমণ। সব মিলিয়ে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগেই শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং কুণাল ঘোষের লড়াই যে এই মুহূর্তে অন্যতম বিষয় হয়ে উঠেছে সে কথা এক বাক্যে মেনে নিচ্ছেন রাজনীতির কারবারিরা। এবার দেখার, কুণালের সাথে শোভনের আইনি লড়াই কোনদিকে মোড় নেয়!

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!