এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে উত্তাল ভোট পরবর্তী রাজনীতি, বিতর্ক তুঙ্গে

তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে উত্তাল ভোট পরবর্তী রাজনীতি, বিতর্ক তুঙ্গে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – যত সময় যাচ্ছে, ততই রাজ্যে বেড়ে চলেছে রাজনৈতিক হিংসার ঘটনা। অবশ্য এই রাজনৈতিক হিংসার ঘটনার শুরু হয়েছিল ভোট পূর্ববর্তী সময় থেকেই, যা এখনো হয়ে চলেছে। মূলত রাজনৈতিক সংঘর্ষের ঘটনা কথা উঠে আসছে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা থেকেই। নির্বাচনে তৃণমূল জেতার পর অভিযোগ উঠছে কিন্তু তাঁদের বিরুদ্ধেই। কিন্তু এবার তৃণমূলের পক্ষ থেকে পাল্টা অভিযোগ, রাজ্যে রাজনৈতিক সংঘর্ষের ঘটনায় এবার প্রাণ গেল এক তৃণমূল নেতার। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রামে। অভিযোগ উঠেছে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা হামলা চালায় তাঁর ওপর এবং সে কারণেই এই তৃণমূল নেতা মারা গেছেন।

ইতিমধ্যে এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। প্রসঙ্গত জানা গিয়েছে, পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রামের মালগ্রামের বাসিন্দা ছিলেন তৃণমূল নেতা শ্রীনিবাস ঘোষ। কেতুগ্রামের আগরডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের 9 নম্বর সদস্য ছিলেন তিনি। সূত্রের খবর, সোমবার রাত ন’টা নাগাদ মালগ্রামে বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে ব্যাপক রাজনৈতিক সংঘর্ষ শুরু হয়। জানা গিয়েছে, সেসময় পঞ্চায়েত সদস্য শ্রীনিবাস ঘোষ ধান কাটার কাজের শ্রমিকের জন্য এক পাড়া থেকে অন্য পাড়ায় যাচ্ছিলেন। জানা যাচ্ছে, সেসময় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা অস্ত্রশস্ত্রসহ তাঁর ওপর চড়াও হয়।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

শ্রীনিবাস ঘোষকে রীতিমতো কুপিয়ে মারা হয়। তাঁকে বাঁচাতে গেলে অন্য আরও দুই তৃণমূল কর্মী জখম হন বলে জানা গিয়েছে। তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে শ্রীনিবাস ঘোষকে মৃত বলে ঘোষণা করেছেন চিকিৎসকরা। যথারীতি এই ঘটনা ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকাজুড়ে। অন্যদিকে তৃণমূলের অভিযোগ অস্বীকার করে কেতুগ্রামের বিজেপি প্রার্থী মথুরা ঘোষ পাল্টা জানিয়েছেন, ভোটে বিজয়ী হবার পর থেকেই তৃণমূল এলাকা জুড়ে ব্যাপক অত্যাচার চালাচ্ছে।

বিজেপি কর্মীদের বাড়ি থেকে শুরু করে সর্বত্র অত্যাচার ভাঙচুর চালায় তৃণমূল দুষ্কৃতীরা বলে দাবি করা হচ্ছে। মালগ্রামে বিজেপি কর্মীরা রোববার রাত থেকে গ্রামছাড়া। বিজেপি প্রার্থী মথুরা ঘোষ দাবি করেছেন, তৃণমূলের বহিরাগত দুষ্কৃতীদের হামলাতেই পঞ্চায়েত সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশের তরফ থেকে তদন্ত শুরু হয়েছে। চিরুনি তল্লাশি চলছে অভিযুক্তদের খোঁজে। এই ঘটনায় অভিযুক্তরা কঠিন শাস্তি পাবে বলে দাবি করা হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। অন্যদিকে এলাকায় যাতে উত্তেজনা না ছড়ায় সে জন্য পুলিশি প্রহরা অব্যাহত।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!