এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > বনধে দোকান খোলায় তৃণমূল-কর্মীকে গুলি করে খুনের অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে

বনধে দোকান খোলায় তৃণমূল-কর্মীকে গুলি করে খুনের অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে



গতকালের বনধে বাস ভাঙচুর, আগুন লাগানো সহ একাধিক অভিযোগ উঠেছে বিজেপির বিরুদ্ধে। এবার সেই সব অভিযোগকে পিছনে ফেলে দিয়ে বনধে দোকান খোলায় এক তৃনমূল কর্মীকে গুলি করে খুনের অভিযোগ উঠল সেই বিজেপিরই বিরুদ্ধে। আর এই গোটা ঘটনায় চরম চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে কেশিয়াড়ির খাজরা এলাকায়।

সূত্রের খবর, স্থানীয় তৃনমূল নেতা ভূষন পুষ্টির একটি পানের দোকান ভাড়া নিয়ে চালাতেন ৫০ বছরের বিভূরঞ্জন দাস। বনধ হলেও এদিন তিনি তা উপেক্ষা করে নিজের দোকানটি খোলা রেখেছিলেন। কিন্তু সন্ধ্যাবেলা হঠাৎ একটি স্করপিও গাড়ি করে মুখঢাকা অবস্থায় কয়েকজন ব্যাক্তি সেই খাজড়ার মোড়ে নামে। আর এরপরই তারা এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে থাকে।

ঘটনাস্থলের এক প্রত্যক্ষদর্শীর কথায় – গুলির আওয়াজ শুনে সকলে পালিয়ে যাওয়ার সময়ই বিভুরঞ্জনবাবুর বুকে একটি গুলি লাগে। এদিকে এরপরই স্থানীয় বাসিন্দারা সেই বিভুরঞ্জন দাসকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষনা করেন। এদিকে এই ঘটনায় বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছে শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেস।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না – তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিন জেলা তৃনমূলের সভাপতি অজিত মাইতি মৃত বিভুরঞ্জন দাসকে নিজেদের কর্মী বলে দাবি করে বলেন, “বিজেপির হুমকি সত্ত্বেও আমাদের ওই কর্মী দোকান খোলা রেখেছিলেন। আর এরপরএ খড়গপুর থেকে দুস্কৃতীদের নিয়ে এসে আমাদের এই কর্মীকে গুলি করে খুন করেছে বিজেপি”।

তবে তাঁদের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করে জেলা বিজেপি সভাপতি সমিত দাস বলেন, “তৃনমূল কংগ্রেসই এই ঘটনা ঘটিয়েছে। গুলি চলার পর আমাদের কর্মীরা দুষ্কৃতীদের ঘিরে রেখে পুলিশকে খবর দিলেও পুলিশ আসেইনি। এর সাথে বিজেপির কোনো যোগ নেই”। এদিকে বনধে দোকান খোলায় এই মৃত্যু নিয়ে রাজনৈতিক তরজা চাইছেন না মৃতর পরিবারও।

তাঁদের দাবি একটাই, যে বা যারা বিভুরঞ্জন দাসকে গুলি করল তাদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হোক। এদিকে এই ঘটনায় তদন্তও শুরু করেছে পুলিশ বলে জানান খড়গপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ওয়াই রঘুবংশী। সব মিলিয়ে বিজেপির ডাকা বনধের দিনে এবার খুনের অভিযোগ উঠল বিজেপিরই বিরুদ্ধে – যা নিয়ে রীতিমত শোরগোল পড়ে গেছে রাজ্য-রাজনীতিতে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!