এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > শোভন-রত্নার বিবাহবিচ্ছেদের ঘটনায় তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল

শোভন-রত্নার বিবাহবিচ্ছেদের ঘটনায় তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল

Priyo Bandhu Media


কলকাতার মহানাগরিক তথা রাজ্যের গুরুত্ত্বপূর্ন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায় তাঁর স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে গার্হস্থ হিংসার অভিযোগ তুলে বিবাহবিচ্ছেদের মামলা রুজু করেছেন। প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় অনেক রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞই একে নারদ তদন্ত প্রক্রিয়া থেকে ‘বাঁচার’ প্রক্রিয়া বলে অভিহিত করেছিলেন। কিন্তু অসমর্থিত সূত্রে মামলার কিছু তথ্য বাইরে আসতেই ব্যাপারটি অন্যদিকে মোর নিয়েছে। দেখা যাচ্ছে শোভনবাবু বা রত্নাদেবী কিন্তু দুজনে বোঝাপড়ার অভাবে ঐকমত্যের ডিভোর্স চান নি, রীতিমতো অভিযোগের লড়াই হচ্ছে এবং অভিযোগ গুরুতর।
আর এরফলেই শাসকদল অস্বস্তিতে পড়েছে বলে সংশ্লিষ্ট মহলের অনুধাবন। কেননা এই মামলার দুই পক্ষ শোভন চট্টোপাধ্যায় (যাঁকে দলনেত্রী আদর করে কানন বলে ডাকেন) ও রত্না চট্টোপাধ্যায় (যাঁর মা কস্তুরী দাস মহেশতলার দাপুটে বিধায়ক ও বাবা দুলাল দাস পুরসভার চেয়ারম্যান ও শাসকদলের দাপুটে নেতা, এমনকি রত্নাদেবী নিজে ক্ষিণ ২৪ পরগণার মহিলা তৃণমূলের সভানেত্রী) দুজনেই দলনেত্রীর অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত। এখন ‘গার্হস্থ হিংসার’ অভিযোগে মামলা দায়ের হওয়ায় অস্বস্তি বহুগুন বেড়ে গেছে। রত্নাদেবী যদি ‘গার্হস্থ হিংসায়’ জড়িত থাকেন তাহলে তিনি কি করে দলীয় পদে থাকেন আর শোভনবাবু যদি মিথ্যা অভিযোগ করে থাকেন তাহলে তিনি মেয়র বা মন্ত্রীত্ত্বের গুরুত্ত্বপূর্ন পদ পান কিকরে, এনিয়ে কিন্তু ক্রমশ সরব হচ্ছেন বিরোধীরা। যা অস্বস্তি বাড়াচ্ছে শাসকশিবিরে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!