এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > জমি ফিরে পেতে তৃণমূলের ভরসা নতুন কমিটি! আসরে স্বয়ং হেভিওয়েট নেত্রী – জানুন বিস্তারিত

জমি ফিরে পেতে তৃণমূলের ভরসা নতুন কমিটি! আসরে স্বয়ং হেভিওয়েট নেত্রী – জানুন বিস্তারিত



গত 2011 সালে সারা রাজ্যে পালাবদলের সাথে সাথে মালদহ জেলায় কিছুটা হলেও দাগ কেটেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। তবে তার পর যতদিন গিয়েছে, ততই সেখানে তৃণমূলের অস্তিত্ব সংকট দেখা দিয়েছিল। কংগ্রেসের চাপে 2016 সালে মালদহ জেলা থেকে একটি বিধানসভা কেন্দ্রও দখল করতে পারেনি তৃণমূল। এমনকি গনি পরিবারের অন্যতম সদস্য মৌসম বেনজির নূরকে এনে গত লোকসভায় প্রার্থী করেও, মালদহ জেলার দুটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে একটিতেও ঘাসফুল ফোটাতে পারেনি রাজ্যের শাসক দল।

আর এরপরই সেই মৌসম নুরের কাঁধে জেলা সভাপতির দায়িত্ব দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যার ফলে অনেকেই আশা করেছিলেন, এবার হয়তো দলীয় সংগঠনকে চাঙ্গা করতে সক্ষম হবেন নতুন সভাপতি। কিন্তু জল্পনাই সার। বাস্তবে তেমনভাবে মালদহ জেলায় সংগঠনকে চাঙ্গা করার কোনো প্রয়াস দেখা যায়নি। তবে এবার পৌরসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে এবং সামনে বিধানসভা নির্বাচনকে ধরে নিয়ে সংগঠনকে চাঙ্গা করতে মাঠে নেমে পড়লেন মালদহ জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূর।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে মালদহ জেলা কমিটি এবং ব্লক কমিটিগুলোর পূর্ণাঙ্গতালিকা রাজ্য নেতৃত্বের কাছে পাঠাতে চলেছে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। আর জেলা কমিটি এবং ব্লক কমিটিগুলো তৈরীর জন্য এখন মালদহ জেলা নেতৃত্বের মধ্যে তৎপরতা দেখা যাওয়ায়, নেতাকর্মীদের অনেকেই আশা প্রকাশ করতে শুরু করেছেন। তবে প্রায় দু’মাস আগে মালদহ সফরে এসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কমিটিগুলো তৈরি করার কথা বললেও, কেন এত দেরি করে সেই কমিটি তৈরি করা হচ্ছে!

এখন তা নিয়ে নানা মহলে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। এদিন এই প্রসঙ্গে মালদহ জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূর বলেন, “বর্তমানে আমরা প্রতিটি ব্লকেই বৈঠক ও সভা করছি। এখানে ব্লক নেতৃত্বের সঙ্গে সংগঠন নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে। ফলে ব্লকের সাংগঠনিক হাল হকিকত জানা যাচ্ছে। একইসঙ্গে পূর্ণাঙ্গ ব্লক কমিটি গঠনের প্রস্তুতিও সারা হয়ে যাচ্ছে। কয়েক দিনের মধ্যে ব্লক স্তরের কর্মসূচি শেষ হয়ে যাবে। তারপর আমরা ব্লক কমিটি তৈরি করব।”

তিনি আরও জানান, “পাশাপাশি জেলা কমিটি গঠন করা হবে। ওই তালিকা অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে, তা ঘোষণা করা হবে। এরপর আমি জেলার বাইরে কয়েকদিনের জন্য গিয়েছিলাম। ওই সময় কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করা যায়নি। তবে ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে প্রক্রিয়া গঠনের কাজ শেষ হয়ে যাবে।” সব মিলিয়ে এবার দেরি করে হলেও, পৌরসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে জেলা কমিটি ও ব্লক কমিটি গঠনে তৃনমূল কবে সাফল্য পায়! সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!