এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার মমতার প্রচারের মন্ত্র শাহরুখ খানের সিনেমার নামে! বাঙালি আবেগে হিন্দি নাম? উঠছে প্রশ্ন

এবার মমতার প্রচারের মন্ত্র শাহরুখ খানের সিনেমার নামে! বাঙালি আবেগে হিন্দি নাম? উঠছে প্রশ্ন



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সামনেই কড়া নাড়ছে পশ্চিমবঙ্গের আগামী বিধানসভা নির্বাচন। আর আগামী বিধানসভা নির্বাচনে মানুষকে কাছে টানতে শাসক দল কোন ফাক ফোকর রাখতে চাইছে না। প্রচারের ঢাক বাজিয়ে বারবার বলা হচ্ছে যে, ” দিদিই মুশকিল আসান! তরী পার করবেন তিনিই।” এরসঙ্গেই মুখ্যমন্ত্রীর বিভিন্ন প্রকল্পর সাফল্যকে বারবার রাজ্যে প্রচার করা হচ্ছে। অসংখ্যবার বলা হচ্ছে মুখ্যমন্ত্রী ‘একমেবাদ্বিতীয়ম’ এবার প্রচারের এই তালিকাতেই এক বিরাট নতুনত্ব।

হিন্দি সিনেমার নাম , ডায়লগ ব্যবহার করে মুখ্যমন্ত্রীর তথা শাসক দলের প্রচার। সম্প্রতি জনসাধারণকে শাসক দলের প্রতি অনুরক্ত করতে, শাসক দলের প্রতি তাদের ভরসা জোগাতে বলিউড অভিনেতা শাহরুখ খানের সিনেমার নাম দিয়ে একটি নতুন প্রচার চালু করল শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে এই নতুন প্রচার অভিযানের জন্য অসংখ্য ঝাঁ-চকচকে ফিল্ম পোস্টার নিয়ে সামনে এলো তৃণমূল।

পোস্টারে দেখা গেল জনসমক্ষে আঙুল উঁচিয়ে স্বভবসিদ্ধ ভঙ্গিমায় দাঁড়িয়ে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী, ঠিক যেন রাজ্যবাসীর কাছে তিনিই একমাত্র ভরসা, এই কায়দায়। আর পোস্টারে জ্বল জ্বল করছে, “ম্যায় হুঁ না”। প্রসঙ্গত, ইতিপূর্বে গত একুশে জুলাই তৃণমূলের শহীদ দিবসের ভার্চুয়াল মঞ্চ থেকে তৃণমূল দলের সদস্যদের উদ্বুদ্ধ করতে মুখ্যমন্ত্রী ইতিপূর্বে অনেকবার বলেছিলেন, “হাম হ্যায় না” কথাটি। তবে এই কথাটি তাঁর কাছে নতুন কিছু না, এটা ইতিপূর্বে বেশ কয়েকবার তাঁকে বলতে শোনা গেছে।

কিন্তু অভিনব হলো এই “ম্যায় হুঁ না” আগামী বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে। যেখানে পশ্চিমবঙ্গের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর বলিউড অভিনেতা শাহরুখ খানের একটি অন্যতম সেরা সিনেমার নাম ব্যবহার। এরকমভাবে সিনেমার নাম বা সিনেমার ডায়লগ দিয়ে ভোটের প্রচার পশ্চিমবঙ্গে ইতি পূর্বে দেখা যায়নি। মুম্বাইতে এরকম ছিটেফোঁটা দেখা গেলেও, দেখা যায়নি পশ্চিমবঙ্গে।
কিন্তু প্রচার তো করা হল যে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী ‘একমেবাদ্বিতীয়ম’, কিন্তু বাংলার মানুষকে তো আর জোর করে তা গেলানো যাবে না।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তাই এবিষয়েও কোন কসুর রাখলো না শোষক দল। এ সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়া টুইটারে এই নতুন পোস্টার দেবার পাশাপাশি শাসকদল টুইট করে জানিয়ে দিল, “এই সময়ে দেশের মানুষ এক অনিশ্চয়তা এবং উদ্বেগের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। কেন্দ্রের বিজেপি সরকার এই পরিস্থিতিতে দেশের পড়ুয়াদের এক বিপদের মুখে ফেলে দিয়েছে। আর তার রেশ ধরেই ছাত্রছাত্রীদের নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিত করার জন্য এই জ্বলন্ত সমস্যা নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এগিয়ে এসেছেন। তিনিই প্রকৃতপক্ষে প্রত্যেকের নেত্রী!”

অন্যদিকে আগামী সেপ্টেম্বর মাসে কেন্দ্র নির্ধারিত জয়েন্টেস পরীক্ষার দিনক্ষণ পিছিয়ে দেওয়ার এর জন্য কেন্দ্রকে বারবার দাবি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। গত বুধবার কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী এক বিশেষ বৈঠকে বিজেপি বিরোধী ৭ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে একত্রিত হয়েছিলেন। বলাই বাহুল্য এই ভার্চুয়াল মিটিংয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী। যেদিন কেন্দ্রকে সাবধান বাণী দিয়ে তিনি জানালেন পরীক্ষার দিন কেন্দ্র যদি বদল না করে তবে, তিনি সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হবেন।

এমনকি এবিষয়ে আন্দোলনে যেতেও তিনি প্রস্তুত আছেন। এর পরেই দলের নতুন পোস্টার ও নতুন ডায়লগ এলো। এই সবকিছুই এই পরীক্ষার দিনবদলের ব্যাপারে সঙ্গে সংযুক্ত বলে অনেকের ধারণা। তবুও অনেকে মনে করছেন এই শাহরুখ খানের সিনেমার পোস্টার ব্যবহার, বা শাহরুখ খানের সিনেমার নাম, ডাইলক ব্যবহার সবকিছুই আর কেউ নয় একটি পিকেরই পরিকল্পনা। ইতিপূর্বে ‘দিদিকে বল’ ‘বাংলার কোন মমতা’র মত এবার নতুন সংযোজন হলো ‘ম্যায় হুঁ না’। কিন্তু এ বিষয়ে একটি প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত গত ২১ সে জুলাই মুখ্যমন্ত্রীকে বলতে শোনা গেছিল, আগামী বছরের নির্বাচনে বাংলা শাসন করবে বাঙালিই কোন অবাঙালি নয়। তাহলে এবার হিন্দি সিনেমার ডায়লগ কেন ব্যবহার করলেন তিনি? এটা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে দিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী বহুবার নিজেকে বাঙালি সংস্কৃতির পরাকাষ্ঠ বলে দাবি করেন বাঙালি, সেন্টিমেন্টের কথাও তিনি বারবার বলেন। সেই মুখ্যমন্ত্রী কিনা বাংলার কোন সিনেমার নাম ব্যবহার না করে করলেন হিন্দি সিনেমার নাম ব্যবহার। দলের অন্দরেই প্রশ্ন উঠতে শুরু হয়ে গেছে, এবারে সাধারণ মানুষও এই প্রশ্ন তোলে তবে কি উত্তর তিনি বা তাঁর দল দেবেন, সেটা অবশ্য জানা নেই।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!