এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > তৃণমূলের ‘দালাল’ জেলা সভাপতি! বিস্ফোরক পোস্টার ঘিরে শোরগোল বিজেপির অন্দরে, বাড়ছে জল্পনা

তৃণমূলের ‘দালাল’ জেলা সভাপতি! বিস্ফোরক পোস্টার ঘিরে শোরগোল বিজেপির অন্দরে, বাড়ছে জল্পনা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –  2021 এর বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিজেপি প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। কিন্তু তার আগে এবার বর্ধমান সাংগঠনিক জেলা বিজেপির সভাপতির বিরুদ্ধে দলের একাংশের তরফে উঠতে শুরু করল বিস্ফোরক অভিযোগ। যেখানে দলের একাংশ পূর্ব বর্ধমান সাংগঠনিক জেলা বিজেপির সভাপতির বিরুদ্ধে বেশ কিছু পোস্টার দিতে শুরু করেছেন। যেখানে কোনোখানে লেখা রয়েছে “সন্দীপ নন্দী টিএমসির দালাল।” আবার কোনোখানে লেখা রয়েছে, “তৃণমূল কংগ্রেসের কোলের ছেলের সন্দীপ দাস দূর হটো!” স্বাভাবিক ভাবেই এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহলে।

জানা গেছে, বুধবার সকালে পূর্ব বর্ধমানের কার্জন গেট এলাকায় বিজেপির জেলা সভাপতি সন্দীপ নন্দীর নামে বেশ কিছু পোস্টার পড়তে দেখা যায়। যেখানে তার সঙ্গে তৃণমূলের ঘনিষ্ঠতার অভিযোগ তুলে একাধিক অভিযোগ করা হয় সেই পোস্টারে। স্বাভাবিক ভাবেই এই ঘটনায় বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে আসতে শুরু করে। বিধানসভা নির্বাচনের আগে জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে কে বা কারা এই রকম ভাবে পোস্টার টাঙালো, তা নিয়ে তৈরি হয় চাঞ্চল্য। অনেকে বলছেন, এটা বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের বহিঃপ্রকাশ। যার ফলে বিজেপির একাংশ কর্মী যদি জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে এই রকম পোস্টার দিয়ে দেন, তাহলে পরিস্থিতি ক্রমশ বেগতিক হওয়ার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

 

যদিও বা বিজেপির পক্ষ থেকে সেই অভিযোগকে সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করা হয়েছে। এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা শ্যামল রায় বলেন, “আমাদের দলের কেউ এরকম কাজ করতে পারে না। গোটা রাজ্যের মত পূর্ব বর্ধমানে তৃণমূলের পরিস্থিতি খুব খারাপ। সেই কারণে বিজেপি কর্মীদের নামে নানা রকম মন্তব্য করা হচ্ছে।” যদিও বা তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ সম্পূর্ণ রূপে অস্বীকার করা হয়েছে।

এদিন এই প্রসঙ্গে তৃণমূল নেতা খোকন দাস বলেন, “গোটা রাজ্যে বিজেপির কর্মী সংখ্যা খুবই কম। পূর্ব বর্ধমানে সামান্য কয়েকজন কর্মী রয়েছেন। তাদের মধ্যে প্রচণ্ড অশান্তি। তার জেরেই এই ঘটনা।” তবে যে যাই বলুন না কেন, যেভাবে বিজেপির জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে তৃণমূল ঘনিষ্টতার অভিযোগ তুলে পোস্টার পড়তে দেখা গেল, তাতে বিজেপি যে ব্যাপক অস্বস্তিতে পড়ল, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!