এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > তৃণমূল সাংসদ বিজেপি কর্মীর বাড়িতে খেয়েছেন, হাটে হাঁড়ি ভাঙলেন দিলীপ ঘোষ !

তৃণমূল সাংসদ বিজেপি কর্মীর বাড়িতে খেয়েছেন, হাটে হাঁড়ি ভাঙলেন দিলীপ ঘোষ !



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সামনেই 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে এখন দলবদলের জল্পনা চরম আকার ধারণ করেছে গোটা রাজ্যে। বিজেপির পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, তৃণমূলের অনেক জনপ্রতিনিধি তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে শুরু করেছেন। এক্ষেত্রে অনেক সাংসদ থেকে শুরু করে অনেক মন্ত্রী তাদের দলে যোগদান করার জন্য কার্যত মুখিয়ে আছেন বলে দাবি করছেন একাধিক বিজেপি নেতা।

বস্তুত, এখন প্রতিনিয়ত তৃণমূলের পক্ষ থেকে সাংবাদিক বৈঠক করা হচ্ছে। শনিবার তৃণমূল ভবনে বিকেলে সাংবাদিক বৈঠক করেন সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার। যেখানে জনসংযোগের কথা তুলে ধরেন তিনি। স্বাভাবিক ভাবেই মুখোমুখি সওয়াল-জবাব না হলেও কাকলি ঘোষ দস্তিদারের জবাব দিতে দেখা যায় বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে। যাকে কেন্দ্র করে রীতিমত টালমাটাল বাংলার রাজনৈতিক মহল। তবে এদিন দিলীপ ঘোষ তৃণমূলের এক সাংসদের নাম করে তিনি বিজেপি কর্মীর বাড়িতে খেয়েছেন বলে বিস্ফোরক উক্তি করেন। যাকে কেন্দ্র করে রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে গোটা বাংলা জুড়ে।

জানা যায়, এদিন তৃনমূলের পক্ষ থেকে বাড়ি বাড়ি জনসংযোগ কর্মসূচি নেওয়ার কথা শোনা গেছে। আর তার পাল্টা বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে ব্যাপারে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন। যা শুনে দিলীপ ঘোষ বলেন, “ভালো তো। আমরাও চাই তৃনমূল মানুষের কাছে যাক। লোকে তৃণমূল নেতাদের সত্যিই খুঁজছে। কাটমানি হিসেব নেবে, সিন্ডিকেটের হিসেব নেবে, কোথায় গেল রেশনের চাল! আমফানের টাকা! জিজ্ঞেস করবে। ওদের যাওয়া উচিত। তবে কি আমি বলব তৃণমূল নেতারা যেন সঙ্গে পুলিশ নিয়ে যান। আমরা কিছু করব না। যা করার মানুষ করবে। পরে বিজেপির ওপরে যেন দোষ না চাপান।”

আর এরপরই কিছুদিন আগেই এক তৃনমূল সংসদ বিজেপি কর্মীর বাড়িতে গিয়ে খাওয়া দাওয়া করেছেন বলে দাবি করেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, “লোকে তো এখন তৃণমূল নেতাদের খেতেও দিচ্ছে না। এই যে তৃণমূল “বাংলার গর্ব মমতা” করেছিল। আমাদের নেতারা বুথে গেলে যেমন মানুষ খেতে দিচ্ছে, ওদের দেয়নি। তৃণমূল সাংসদ চৌধুরী মোহন জাটুয়া নিজের কেন্দ্রে গিয়েছিলেন। তাকে বিজেপি কর্মীর বাড়ি খেতে হয়েছে।”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অর্থাৎ দিলীপ ঘোষ একথা বলে তৃণমূলের ভেতরকার পরিস্থিতিকে আরও নাড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেন। এমনিতেই রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী সহ পাঁচ তৃণমূল সাংসদ বিজেপিতে যোগ দেবেন বলে কিছুদিন আগেই দাবি করে বসেছিলেন বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ। আর তারই মাঝে এবার যেভাবে তৃণমূল সাংসদ বিজেপি কর্মীর বাড়িতে খাওয়া দাওয়া করেছেন বলে বিস্ফোরক দাবি করলেন দিলীপ ঘোষ, তাতে তৃণমূল অনেকটাই চাপে পড়ে গেল বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

তবে দিলীপ ঘোষ তৃণমূলের বিরুদ্ধে এই ধরনের বিস্ফোরক উক্তি করলেও, রাজ্যের উন্নয়নের কথা তুলে ধরে এদিন সাংবাদিক বৈঠক করেন তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার। যেখানে বিগত বাম আমলে মহিলাদের সুরক্ষার কথা তুলে ধরে এই তৃণমূল সাংসদ বলেন, “35 বছর ধরে বাংলার মহিলাদের ওপর অত্যাচার হয়েছে। কিন্তু দশ বছরে রাজ্যে শান্তি-শৃঙ্খলার চেহারাটা বদলে গিয়েছে। গোটা দেশে আর কোনো রাজ্য নেই, যেখানে মহিলারা এতটা সুরক্ষিত।”

অর্থ্যাৎ বিগত বাম আমলে অসুরক্ষার কথা যেমন তুলে ধরলেন এই তৃণমূল সাংসদ, ঠিক তেমনই বর্তমানে কেন্দ্রে বিজেপি সরকার থাকলেও পশ্চিমবাংলার মত কেউ নারীদের সুরক্ষা দিতে পারে না বলেও দাবি করলেন কাকলি ঘোষ দস্তিদার। যার পাল্টা মন্তব্য করে তৃণমূল সাংসদ বিজেপি কর্মীর বাড়িতে খাওয়া-দাওয়া করেছে বলে তৃণমূলের ভেতরে গুঞ্জন বাড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। একাংশ বলছেন, যদি দিলীপ ঘোষের এই কথা বাস্তব হয়, তাহলে আগামী দিনে অত্যন্ত চাপে পড়তে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!