এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ‘চাপে’ ফেলে কঠোরতর নিয়ম আনতে চলেছে নবান্ন

রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ‘চাপে’ ফেলে কঠোরতর নিয়ম আনতে চলেছে নবান্ন



রাজ্যের সরকারী কর্মচারীদের মধ্যে কর্মসংস্কৃতি ফেরাতে , কর্ম সচেতনা বৃদ্ধিতে যথেষ্ট উদ্যোগী পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এই উপলক্ষ্যে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। সকল সরকারি দফতরে কর্মীচারীদের অফিসে আসা ও যাওয়ার সময় আঙুলের ছাপে নথিভুক্ত করার জন্যে বায়োমেট্রিক পদ্ধতি ব্যবহৃত হচ্ছে। ঘোষণা হয়েছে নির্দিষ্ট প্রোফর্মায় কর্মীদের উপস্থিতি সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রতি মাসের ৭ তারিখের মধ্যে জমা দিতে হবে।ওই রিপোর্টে কর্মীরা মাসে কতদিন দেরিতে অফিসে আসছেন বা অফিস ছুটির আগে বেরিয়ে গিয়েছেন কি না, তা জানাতে হবে পরিস্কার ভাবে। বেলা ১০টা ৪৫ মিনিটের পরে অফিসে ঢুকলে, সেটাও আলাদা করে জানাতে হবে। কর্মীরা কতদিন অনুপস্থিত ছিলেন এবং অফিসের কাজে বাইরে ছিলেন, সেটাও জানাতে হবে। সেচ দপ্তরের সচিবালয় ছাড়াও ডিরেক্টরেট, সার্কেল এবং ডিভিশন অফিস থেকেও ওই রিপোর্ট পাঠাতে হবে। উল্লেখ্য সব দফতরে বায়োমেট্রিক ব্যবস্থা চালু হলেও কর্মীদের উপস্থিতির ব্যাপারে নিয়মিত রিপোর্ট জমা পড়ছে না। আর এই ঘটনা ঘটেছে সেচ দফতরেই, ফলে সম্প্রতি সেচ দফতর একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। যেখানে কর্মচারীদের উপস্থিতি সংক্রান্ত রিপোর্ট জমা না পরার কথা বলা হয়েছে। তবে যে সব অফিসে এখন বায়োমেট্রিক হাজিরা ব্যবস্থা চালু হয়নি, সেখান থেকেও কর্মীদের উপস্থিতি সংক্রান্ত রিপোর্ট চাইছে দফতর। সরকারি আধিকারিকদের মতে রিপোর্ট না আসায় কর্মীদের বিরুদ্ধে অনেকাংশেই ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না। ফলে সরকারের কর্মসংস্কৃতি নষ্ট হচ্ছে, এই অব্যবস্থার দ্রুত নিষ্পত্তির জন্যে আর ও কঠোর হচ্ছে দফতর।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!