এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > কংগ্রেস > টুলকিট তদন্তে নয়া মোড়, কংগ্রেসের বিরুদ্ধে তদন্ত বন্ধ করে দিল দিল্লি পুলিশ

টুলকিট তদন্তে নয়া মোড়, কংগ্রেসের বিরুদ্ধে তদন্ত বন্ধ করে দিল দিল্লি পুলিশ



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বর্তমানে দেখা যায় রাজনৈতিকভাবে সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করতে উদ্যত প্রায় সবাই। এবং সেক্ষেত্রে টুইটারের নাম সর্বপ্রথম আসছে। সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করার সাথে সাথে রাজনৈতিক জগতের বহু স্পর্শকাতর বিষয় এখন বলা যায়, সর্বসাধারণের জন্য উন্মোচিত। আর তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল রাখতে সচেষ্ট সবাই। কিন্তু বিজেপির ক্ষেত্রে তা বাদ সেধেছে টুলকিট বিতর্ক। এবং এই টুইটারের হাত ধরেই সামনে এসেছে টুলকিট বিতর্ক। এতদিন পর্যন্ত টুলকিট বিতর্ক নিয়ে দিল্লি পুলিশ তদন্ত চালাচ্ছিল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে।

কার্যত গত মে মাসে বিজেপির তরফ থেকে অভিযোগ ওঠায়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভাবমূর্তি খারাপ করার জন্য কংগ্রেস টুলকিট বানিয়েছে, যেখানে বলা হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী করোনার মোকাবিলা করতে ব্যর্থ হয়েছেন। বেশ কিছুদিন কংগ্রেসের বিরুদ্ধে তদন্ত চালানোর পর আপাতত দিল্লি পুলিশের তদন্ত বন্ধ করছে। কার্যত দিল্লি পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিজেপির মুখপাত্র সম্বিত পাত্র এবং ছত্তিশগড়ের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী রমন সিং দিল্লি পুলিশের কাছে জানিয়েছেন, তাঁরা তদন্ত ছত্তিশগড়ে চালাতে চাইছেন। সেইমতো দিল্লি এবার তদন্ত বন্ধ করে দিচ্ছে। প্রসঙ্গত গত মে মাসে বিজেপি নেতারা একটি নথির ছবি টুইটারে আপলোড করেন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

যেখানে এআইসিসির রিসার্চ ডিপার্টমেন্টের নাম দেওয়া হয়। কিন্তু টুইটার জানায়, এই নথিটি জাল। সাথে সাথেই দিল্লি পুলিশ টুইটার ইন্ডিয়ার ম্যানেজিং ডিরেক্টর মনীশ মহেশ্বরীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠায়। এমনকি টুইটার ইন্ডিয়ার দিল্লি অফিসে গিয়ে একটি নোটিশ জারি করে দিল্লি পুলিশ। বিজেপির বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ নিয়ে এসেছিলেন কংগ্রেসের সোশ্যাল মিডিয়া সেলের প্রধান রোহন গুপ্ত এবং দলের মুখপাত্র এম ভি রাজীব গৌড়া।

দিল্লি পুলিশের পক্ষ থেকে তাঁদেরকে নোটিশ পাঠানো হয়। এর আগে সমাজকর্মী দিশা রবির বানানো টুলকিট গ্রেটা থুনবার্গ শেয়ার করেছিলেন। আর তাই নিয়ে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র। দিল্লি পুলিশের পক্ষ থেকে বেঙ্গালুরু থেকে গ্রেপ্তার করা হয় দিশা রবিকে। অন্যদিকে টুলকিট বিতর্কে বিজেপির মন্ত্রীরা একের পর এক বিতর্ক উদ্রেককারী মন্তব্য করেন। তবে ছত্তিশগড়ে টুলকিট বিতর্ক সরে যাওয়ায় কংগ্রেসের জন্য নতুন অস্বস্তি তৈরি হয় কিনা, সেদিকেই নজর রাখছে ওয়াকিবহাল মহল। পাশাপাশি এই তদন্ত নতুন কোন সূত্র সামনে আনে, সেটাই দেখার।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!