এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > কি এমন হল যে এর মধ্যেই নতুন ইনিংস শুরু করতে চাইছেন সৃজিত? শুরু তীব্র বিতর্ক, জানুন বিস্তারে

কি এমন হল যে এর মধ্যেই নতুন ইনিংস শুরু করতে চাইছেন সৃজিত? শুরু তীব্র বিতর্ক, জানুন বিস্তারে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর মামলায় বলিউডের একাধিক অন্ধকার দিকের প্রকাশ ঘটেছে। বলিউডের স্বজনপোষণ থেকে শুরু করে ড্রাগস এমন বহু চমকে দেওয়া তথ্যে সিনেমা জগতের অনুরাগীদের পায়ের মাটি কেড়ে নিয়েছে। রঙিন জগতের ওপারের দৃশ্য যে এতটাও বেরঙিন হতে পারে, সেটা হয়তো কেউ কল্পনাও করতে পারেননি।

তবে সম্প্রতি সেই ছায়া কি টলিউডে পড়তে চলেছে? এমনটাই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন অনেকেই। বস্তুত এই দ্বন্দ্ব নেপোটিজম বা ড্রাগস সংক্রান্ত নয়। টলিউডের দুই খ্যাতনামা পরিচালকের কথোপকথনের। যা নিয়েই তৈরি হয়েছে সমস্যা।

বস্তুত, একজনের তুলনায় অন্যজনের সিনেমার সংখ্যায় কম হলেও তার কারণ হিসেবে অন্যজনকে আঘাত করার অভিযোগ উঠতে দেখা গেছে। সেই সঙ্গে অন্য পরিচালকের রুচিবোধ নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে ছাড়েননি দ্বিতীয়জন। আর এই দুই পরিচালকের বাক-বিতণ্ডার সাক্ষী হয়ে থাকতে দেখা গেছে সোশ্যাল মিডিয়াকে।

কথা হচ্ছে টলিউডের খ্যাতনামা পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের। বিনোদন জগতের একদশক পূর্ণ হওয়ায় নিজের কাজ নিয়ে গর্বিত পরিচালক টুইট করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। আর তাতেই তাঁকে কটাক্ষ করতে শোনা গেছে অপর এক পরিচালক সুমন ঘোষকে। কি হয়েছিল সেদিন?

বিনোদন জগতে একদশক পূর্ণ হওয়ার অনুরাগীদের উদ্দেশ্য করে তাঁকে সোশাল মিডিয়ায় লিখতে দেখা গিয়েছিল যে ১০ বছর, ১৮টি সিনেমা, ২টি ওয়েব ফিল্ম, ১টি ওয়েব সিরিজ, ১৭টি রিলিজ, ১৪টি সুপারহিট, ১৭৭টি পুরস্কার, ৫৯টি ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল। আর এই সফর সফল হয়েছে শুধুমাত্র দর্শক, জুরি মেম্বাররা এবং সমালোচকরদের জন্যই। সমস্ত কিছুর জন্যই ধন্যবাদ। আর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রত্যেকের ভালবাসা। এবার নতুন ইনিংস শুরুর সময়। লেগ স্ট্যাম্প প্লিজ!


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে, সুমন ঘোষকে এরই প্রতিবাদে মুখর হতে দেখা গেছে। বস্তুত, তিনি হলেন প্রবাসীর অর্থনীতির অধ্যাপক। কাজেই ছবি বানানোটা তাঁর অবসরের শিল্প মাত্র। তবে সৃজিতের মতো তিনিও জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক। তবে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের কথায় তাঁর রুচিবোধের অভাব লেগেছে বলেই মনে করেছেন তিনি।

ফলত সৃজিতের টুইটের বিরুদ্ধে তাঁকে বলতে শোনা গেছে বাংলা সিনেমায় সৃজিতের অবদানের জন্য সাধুবাদ। তবে তাঁকে এভাবে নিজের স্কোরকার্ড দিতে দেখে একটু অস্বস্তি বোধ করেছেন তিনি। কাউকে কখনও এমনটা করতে দেখেননি বলেই জানান তিনি। তবে তার সঙ্গে তিনি এটাও জানিয়েছেন যে সৃজিত নিশ্চয়ই জানেন তিনি বিদ্বেষ থেকে একথা বলেন নি। এটা রুচিবোধের বিষয় মাত্র… হয়তো শুধু তাঁর মতেই।

আর এখানেই চটেছেন সৃজিত মুখোপাধ্যায়। তাঁর কথায় একজন অর্থনীতিবিদ/পরিসংখ্যানবিদের কাছ থেকে এই প্রতিক্রিয়া পেয়ে তিনি অবাক। যিনি অন্য বক্স অফিস পরিসংখ্যান জানতে আর সেই নিরিখে সাফল্য মাপতে পারেন, তাঁর এমন কথা শুনে অবাক হতেই হয় বলেই মনে করেন তিনি। খোঁচা দিয়ে যোগ করেন, মনে হয় অবস্থা বুঝে রুচিবোধ পালটায়। তবে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের এই টুইটের উত্তরে আবার সুমন ঘোষকে বলতে শোনা যায়, সাফল্যের কথা সফলরা বলেন না। তাঁর সাফল্যের কথা অন্যরা বলেন।

যেখানে আবার সৃজিতের তথ্যের সত্যতা নিয়েও তিনি নিশ্চিত বলে জানান। অবশ্য এই কথা নিয়েও দ্বিমত পোষণ করেছেন সৃজিত মুখোপাধ্যায়। তাঁর মতে, তিনি কেবল অনুরাগীদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন এই পরিমাণ ভালবাসা দেওয়ার জন্য। এছাড়া তাঁর রুচিবোধের বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তোলার জায়গা নেই বলেই মনে করেন তিনি। বস্তুত, নায়িকাদের মধ্যে ক্যাট ফাইট দেখা যায় প্রায়ই। কিন্তু সেই জায়গায় পরিচালকদের এই দ্বন্দ্ব কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে, সেটা এবার দেখার অপেক্ষা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!