এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > তৃণমূলে থেকে ‘দাদাগিরির’ দিন শেষ? মমতার পদক্ষেপে জল্পনা শুরু মা-মাটি-মানুষের সরকারকে নিয়ে!

তৃণমূলে থেকে ‘দাদাগিরির’ দিন শেষ? মমতার পদক্ষেপে জল্পনা শুরু মা-মাটি-মানুষের সরকারকে নিয়ে!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – মুখ্যমন্ত্রী বারবার শাসকদলের নেতা-কর্মীদের মানবিক হতে ও সাধারণ মানুষের পাশে থাকতে নির্দেশ দিয়ে থাকেন। তবে, এরপরেও দলের একাংশের বিরুদ্ধে দাদাগিরি ও ক্ষমতার আস্ফালনের অভিযোগ উঠেছে। দীর্ঘদিন ক্ষমতার অলিন্দে থাকার কারণে দলের একাংশ মানুষের কাছ থেকে দূরে সরে গেছেন, এমন অভিযোগও একাধিকবার উঠেছে। এবার এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায। আজ চিঠি দিয়ে দলের বিধায়কদের একদিকে যেমন তিনি শুভেচ্ছা বার্তা দিলেন, অন্যদিকে তেমনি কর্তব্য বিষয়েও তাদেরকে সচেতন করে দিলেন।

বিধায়কদের চিঠি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, তাঁদের এই জয় মা মাটি মানুষের জয়, উন্নয়নের জয়, একতা, শান্তি, সম্প্রীতি, সংস্কৃতির, সভ্যতার, সৌভ্রাতৃত্বের জয়। কিন্তু সেই সঙ্গেই তিনি তাঁদের স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন যে, মানুষের ভরসাকে যোগ্য সন্মান দিতে হবে। সুখে, দুঃখে মানুষের পাশে থাকতে হবে। নম্রতা ও বিনয়ের সঙ্গে মানুষের হয়ে কাজ করে যেতে হবে বিধায়কদের। বিধায়কদের নিজের এলাকার মানুষের সঙ্গে সর্বদা যোগাযোগ বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সরকারের উন্নয়নমূলক কাজের সুফল যাতে সমস্ত মানুষ পেতে পারেন, তা নিশ্চিত করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। বিধায়কদের উদ্দেশ্যে তিনি জানিয়েছেন, তৃণমূল কংগ্রেস হলো জনগণের দল। জনগণের জন্য এই দল কাজ করবে, এটাই হলো দলের অঙ্গীকার। ইতিপূর্বে মুখ্যমন্ত্রী দলের বিধায়কদের উদ্দেশ্যে জানিয়েছেন যে, বিধানসভার কাজ মন দিয়ে সকলকে করতে হবে। নিয়মিত উপস্থিত থাকতে হবে অধিবেশনে। কমিটির বৈঠকে, আলোচনায়, প্রশ্নোত্তরে অংশগ্রহণ করতে হবে। গুরুত্বপূর্ণ বিলের উপর বক্তব্য রাখতে হবে। উপস্থিত হতে না পারলে আগেভাগেই তার কারণ জানাতে হবে।

চিঠি দিয়ে বিধায়কদের মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই রাজনৈতিক মহলের দাবি। অনেকেই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের একাংশের বিরুদ্ধে দাদাগিরি, ক্ষমতার আস্ফালনের অভিযোগ করেছিলেন। যে অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও এসে পৌঁছেছে। তাই, এবার এবিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। বিধায়কদের মানুষের পাশে থাকার নির্দেশ, সুখে দুঃখে মানুষের পাশে থাকার নির্দেশ, নম্রতা ও বিনয়ের সঙ্গে মানুষের সেবা করার নির্দেশ দিয়ে দলকে শৃংখলাবদ্ধ করার পরিকল্পনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। যা থেকে একাধিক রাজনৈতিক বিশ্লেষক মনে করছেন যে, এখন থেকে আর তৃণমূলে কোনো দাদাগিরি চলবে না, দাদাগিরি ভুলে গিয়ে মানুষের সেবায় আত্মনিয়োগ করতে হবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!