এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > তৃণমূলের উন্নয়নের জের! রাস্তা থেকে ১০০ দিনের কাজ: তৃণমূলের দুর্নীতি নিয়ে সরব দলেরই ৭ নেতা!

তৃণমূলের উন্নয়নের জের! রাস্তা থেকে ১০০ দিনের কাজ: তৃণমূলের দুর্নীতি নিয়ে সরব দলেরই ৭ নেতা!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আগামী ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভোট কুশলী পিকে শাসক দলের সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি করতে একেবারে উঠে পড়ে লেগেছেন। কিন্তু সেইসঙ্গে শাসক দলের একটি সমস্যা যথেষ্ট ভাবাচ্ছে তাঁকে। যা হলো দলের অন্তর্দ্বন্দ্ব তথা গোষ্ঠী কোন্দলের সমস্যা। এই বিষয়ে তিনি বারবার সতর্ক করেছেন। কিন্তু শাসক দলের গোষ্ঠী কোন্দল তবু রোধ করা যাচ্ছে না। নানা স্থানে প্রকাশ হয়ে পড়ছে শাসক দল তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলের চিত্র।

পূর্ব বর্ধমান জেলা জামালপুর দু’ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতে এক রাস্তা নির্মাণকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের ৪ জন পঞ্চায়েত সদস্যের বিরুদ্ধে বিশেষভাবে সরব হলেন তৃণমূল দলেরই ৭ জন পঞ্চায়েত সদস্য। প্রসঙ্গত জামালপুর দু নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতে রয়েছেন মোট ১২ জন পঞ্চায়েত সদস্য। যাদের মধ্যে তৃণমূলের সদস্য হলেন ১১ জন ও বিজেপির সদস্য ১ জন। তৃণমূল দলের এই ১১ জন পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যর মধ্যে ৭ জন পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য বাকি ৪ জন সদস্যের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সম্প্রতি এই গ্রামে একটি রাস্তা তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু এই রাস্তা তৈরির ক্ষেত্রে কোন টেন্ডার ডাকা হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। রাস্তা নির্মাণের অল্পদিন পরেই রাস্তার অবস্থা ক্রমশ খারাপ হতে শুরু করে। তাই শেষ পর্যন্ত বাধ্য হয়ে স্থানীয় মানুষেরাই সেই রাস্তার মেরামত করিয়েছেন। এই ঘটনার পর তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে সমগ্র এলাকা জুড়ে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

বিক্ষুব্ধ ৭ জন তৃনমূল সদস্য জানিয়েছেন যে, এই চারজন পঞ্চায়েত সদস্যদের বিরুদ্ধে আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ ইতিপূর্বেই তাঁরা ব্লক, জেলা ও রাজ্য প্রশাসনের কাছে অবহিত করেছিলেন। তাঁদের অভিযোগ, এই রাস্তার নির্মাণ নিয়ে ব্যাপক দুর্নীতি করা হয়েছে। রাস্তা নির্মাণের সঙ্গে সঙ্গেই দুর্নীতি করা হয়েছে ১০০ দিনের কাজ নিয়ে। তাদের আরো অভিযোগ, এই এলাকার কমিউনিটি হল, কালভার্ট নির্মাণও সঠিকভাবে করা হয়নি।ফলে ভোগান্তি বাড়ছে সাধারণ মানুষের। সাধারণ মানুষ তাদের প্রাপ্য পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এই ঘটনা তাঁরা কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না, তাই এর প্রতিবাদে নেমেছেন তাঁরা।

এ প্রসঙ্গে জামালপুর দু’ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান মণিকা মুর্মু বিক্ষুব্দদের এই অভিযোগকে কোনভাবেই আমল দেন নি। এ প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, এই অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যে। তাঁর পঞ্চায়েতের দুর্নীতির ব্যাপার নেই। তবে এ প্রসঙ্গে এখানকার উপপ্রধান উদয় দাস জানিয়েছেন যে, রাস্তা নির্মাণ হয়েছে কিন্তু এই রাস্তার কাজের সঙ্গে পঞ্চায়েতের কোন সম্পর্ক নেই। রাস্তার কাজের বিষয়ে পঞ্চায়েত থেকে যেমন কোন টেন্ডার ডাকা হয় নি। তেমনি পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে কাউকে এই রাস্তা নির্মাণ কাজের বরাতও দেওয়া হয়নি।

এ বিষয়ে জামালপুর দু’নম্বর ব্লকের বিডিও শুভঙ্কর মজুমদারের মতামত, পঞ্চায়েত এই রাস্তাগুলি তৈরি করায়নি। একারণে এই রাস্তাগুলো নির্মাণ বিষয়ে পঞ্চায়েত কোনভাবেই দায়ী নয়। তবে এ প্রসঙ্গে জামালপুর ব্লক তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি ও সেইসঙ্গে পঞ্চায়েত সমিতির জনৈক সদস্য প্রদীপ পাল জানিয়েছেন, ” রাস্তার কাজ নিয়ে যে দুর্নীতি হয়েছে তা ধরা পড়ে যাওয়ার পরেই পঞ্চায়েতের কর্তারা এখন উলটো কথা বলছেন তাঁরা। আর পঞ্চায়েতের কর্তাদের কথায় টাকা খরচ করে যারা রাস্তা তৈরি করেছেন তারা এখন চোখের জল ফেলে দিন কাটাচ্ছেন।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!