এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > নিজের হাই-প্রোফাইল নিরাপত্তা হঠাৎ ছাড়লেন হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা! তুমুল শোরগোল শুরু শাসকদলে!

নিজের হাই-প্রোফাইল নিরাপত্তা হঠাৎ ছাড়লেন হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা! তুমুল শোরগোল শুরু শাসকদলে!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যের আগামী বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে রাজ্যের বিভিন্ন দলের মধ্যে যখন চলছে দলবদলের হিড়িক। ঠিক সেই আবহেই জল্পনা বহুলাংশে বাড়িয়ে দিয়ে আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের তৃণমূল কংগ্রেসের মেন্টর ও সেই সঙ্গে একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা মোহন শর্মা রাজ্য সরকারের তরফ থেকে তাঁর নিরাপত্তার জন্য নিযুক্ত নিরাপত্তারক্ষীদের অকস্মাৎ ছেড়ে দিলেন। যে নিয়ে তুমুল শোরগোল অলিপুরদুয়ার জেলায় শাসক দলের অন্দরে।

প্রসঙ্গত আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের মেন্টর হলেন বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা মোহন শর্মা। আলিপুর জেলা পরিষদের মেন্টর ছাড়াও, তিনি জয়গাঁ উন্নয়ন পরিষদের সহ-সভাপতি, সেইসঙ্গে আলিপুরদুয়ার জেলা আইসিডিএস কমিটির চেয়ারম্যানও তিনি, এ ছাড়াও তিনি ডুয়ার্স কালচারাল ডেভেলপমেন্ট কমিটির (গোর্খা) চেয়ারম্যান। আবার সেই সঙ্গে তৃণমূল দলের চা শ্রমিক সংগঠনের রাজ্য সভাপতিও তিনিই। তাই সমস্ত দিক থেকেই তৃণমূল কংগ্রেসের একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব হলেন তৃণমূল নেতা মোহন শর্মা।

প্রসঙ্গত গত ২০১৮ সালের পশ্চিমবঙ্গের পঞ্চায়েত নির্বাচনের পর থেকে তার সার্বিক নিরাপত্তার কারণে হোমগার্ড, এসকর্ট, ব্যক্তিগত নিরাপত্তা রক্ষীর ব্যবস্থা করা হয়েছিল রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে। কিন্তু অকস্মাৎ তিনি জানালেন যে, তিনি এই তিন ধরনের নিরাপত্তা রক্ষী ছেড়ে দিচ্ছেন। কিন্তু কী কারণে তিনি এমন সিদ্ধান্ত নিলেন সে বিষয়ে তিনি কিছুই জানালেন না। আর এতেই শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের অন্তরে শুরু হলো ব্যাপক চাপান উতর।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তার এই নিরাপত্তা রক্ষি ত্যাগ প্রসঙ্গে তৃণমূল নেতা মোহন শর্মা নিজেই জানালেন, ” আমি পনেরো দিন আগেই সব ধরনের নিরাপত্তা রক্ষী ছেড়ে দিয়েছি। তবে কী কারণে আমি নিরাপত্তা রক্ষী ছেড়েছি তা মিডিয়ার কাছে বলব না। যা বলার আমি দলকে বলব। ’’
অন্যদিকে প্রসঙ্গে আলিপুরদুয়ার বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক ও সেইসঙ্গে আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের একজন গুরুত্বপূর্ণ মুখপাত্র সৌরভ চক্রবর্তী জানালেন, ” দলে বিষয়টি এখনও আলোচনা হয়নি। আমি মোহনবাবুর সঙ্গে কথা বলব। কেন তিনি রাজ্য সরকারের দেওয়া নিরাপত্তা রক্ষী ছেড়ে দিলেন তা খতিয়ে দেখা হবে।’’

প্রসঙ্গত কি কারণে তিনি নিরাপত্তা কর্মীদের এভাবে অকস্মাৎ বিদায় করে দিলেন সে বিষয়ে তিনি স্পষ্টত কিছুই জানালেন না। কিন্তু তার মতো একজন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের পক্ষে এভাবে নিরাপত্তারক্ষী ত্যাগের বিষয়টি যথেষ্ট ভাবাচ্ছে শাসক দলকে। শাসকদলের কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলে দিয়েছে এ বিষয়টি। আবার তৃণমূল দলেরই একটি বিরাট অংশ মনে করছেন যে, তৃণমূল দলের মধ্যে সম্প্রতি অনেকটাই নিষ্ক্রিয় করে দেওয়া হয়েছে মোহন বাবু ও এটার অনুগামীদের। পরিবর্তে তাঁর বিরোধী বিভিন্ন নেতাকর্মীদের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে এনে বসাচ্ছে তৃণমূল। একারণেই দলের প্রতি তাঁর বেড়েছে ক্ষোভ। তাই তিনি এমনেকটি বিশেষ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর এরপর তিনি দলের বিরুদ্ধে কি পদক্ষেপ নিতে চলেছেন সেদিকেই দৃষ্টি রাজ্যের সমস্ত রাজনৈতিক মহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!