এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > পিছিয়ে থাকা বিধানসভায় ‘দুর্দান্ত’ ফল করতে কর্মীদের ‘পাঠ’ শাসকদলের শীর্ষনেতাদের

পিছিয়ে থাকা বিধানসভায় ‘দুর্দান্ত’ ফল করতে কর্মীদের ‘পাঠ’ শাসকদলের শীর্ষনেতাদের



শুক্রবার উত্তর দিনাজপুরের চাকুলিয়ার সিরসি মাদ্রাসা ময়দানে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে গ্রাম পঞ্চায়েত, পঞ্চায়েত সমিতি, জেলা পরিষদ – সব জায়গা থেকেই বিরোধীদের নিশ্চিহ্ন করার লক্ষ্য নিয়ে পঞ্চায়েতি রাজ সম্মেলনের আয়োজন করেছিল রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। এই জনসভায় প্রধান বক্তা ছিলেন পরিবহন মন্ত্রী তথা দলের উত্তর দিনাজপুর জেলার পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী। অন্যান্য হেভিওয়েট নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব, রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দফতরের প্রতিমন্ত্রী গোলাম রব্বানী, বিধায়ক হামিদুল রহমান, কানাইয়ালাল আগরয়ালা, মনোদেব সিনহা, অমল আচার্য, জেলা পরিষদের সভাধিপতি আলাম নুরী প্রমুখ। শুভেন্দু বাবু তাঁর ভাষণে বলেন, রাজ্যে সিপিএম নেই, কংগ্রেস নিশ্চিহ্ন। প্রদেশ কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি অধীর চৌধুরীর নাম না করেই তিনি বলেন সকালে সিপিএম, রাতে বিজেপির সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। চাকুলিয়ার বিধায়ক নিজের এলাকাতে কোনও কাজ করতে পারেননি। তাই বিজেপির মতন আরেকটা ধর্মের রাজনীতি করেন। কিন্তু লোক এখন বুঝে গেছেন যে ধর্মের রাজনীতি চলবে না।

২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে ২৯৪ আসনের প্রায় ২১১ টিতে জয়লাভ করলেও চাকুলিয়া আসনটি অধরা থেকে যায় তৃণমূল কংগ্রেসের। গত নির্বাচনে এই আসনে জয়লাভ করেন বাম প্রার্থী ফরওয়ার্ড ব্লকের আলি ইমরান এবং দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন বিজেপি প্রার্থী অসীম কুমার মৃধা। আর তাই বিধানসভা ভোটের সেই ব্যবধান মুছে সেখানে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে ‘দুর্দান্ত’ ফল করে পাখির চোখ শাসক শিবিরের। সেই লক্ষ্যেই ওই পঞ্চায়েতি রাজ সম্মেলনের সভা থেকে বক্তব্য রাখেন শাসকদলের শীর্ষনেতারা। সভায় উপস্থিত গৌতম দেব বলেন, আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনকে সফল করার জন্য শুধুমাত্র মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার দিনগুলি বাদ দিয়ে বাকি দিনগুলিতে দল যে কোনও জায়গায় ডাকলে সেখানেই চলে যাব। তিনি আরও বললেন, শহর ছেড়ে বরং গ্রামে গ্রামে দলের কর্মীদের বাড়ি থেকে সভা করব। অন্যদিকে, প্রতিমন্ত্রী গোলাম রব্বানী বলেন, বাম বিধায়কের এলাকায় তার বাবা এবং কাকা জনপ্রতিনিধি ও মন্ত্রী থাকাকালীন কোনও কাজ করা হয়নি। এমনকি পরিবার তন্ত্রের সেই পথেই হাঁটছেন বর্তমান বিধায়ক। অথচ চাকুলিয়ার পাশে গোয়ালপোখর ও ইসলামপুরে যে উন্নয়ন হয়েছে তা সচক্ষে দেখছে এলাকাবাসীরা। আর তাই এবার পঞ্চায়েত নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের জয় নিশ্চিত।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!