এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > একুশের লক্ষ্যে: ছাত্র-ছাত্রী থেকে অভিভাবককে “সচেতন” করতে তৃণমূল পাশে চায় শিক্ষক সংগঠনকে

একুশের লক্ষ্যে: ছাত্র-ছাত্রী থেকে অভিভাবককে “সচেতন” করতে তৃণমূল পাশে চায় শিক্ষক সংগঠনকে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে ইতিমধ্যেই তৃণমূল কংগ্রেস ময়দানে নেমে পড়েছে। সাংগঠনিক পরিবর্তন করার পাশাপাশি মানুষের কাছে পৌঁছানোর জন্য নানা কর্মসূচি শুরু করেছে শাসক দল। বিজেপির প্রভাব যখন দিনকে দিন বাড়ছে, তখন তৃণমূল চেষ্টা করছে সমস্ত শাখা সংগঠনগুলোকে সাজিয়ে নিয়ে একসাথে ময়দানের আমার। এবার বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে কোচবিহারের শিক্ষক সংগঠনকে কাজে লাগাতে চাইছে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব।

সূত্রের খবর, বুধবার কোচবিহারের সাহিত্যসভায় পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে নতুন জেলা সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়কে একটি সংবর্ধনা দেওয়া হয়। জানা যায়, প্রায় 2 হাজার শিক্ষককে এবার বিধানসভা নির্বাচনের জন্য মাঠে নামতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। খুব দ্রুত যাতে জেলা কমিটি এবং ব্লক সভাপতির নাম ঘোষণা করা যায়, তার জন্য তৎপরতা তৈরি হয়েছে জেলা তৃণমূলের অন্দরমহলে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শিক্ষকরা সমাজের কারিগর‌। তাদেরকে যদি বিধানসভা নির্বাচনের সাফল্যের জন্য ময়দানে নামিয়ে অভিভাবক, অভিভাবিকা এবং ছাত্র ছাত্রীদের পাশে দাঁড়ানোর প্রয়াস নেওয়া হয়, তাহলে তৃণমূল সম্পর্কে মানুষের কাছে স্বচ্ছ ভাবমূর্তি ফুটে উঠবে। যার প্রভাব পড়বে ভোটবাক্সে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তাই এখন থেকেই শিক্ষক সংগঠনকে আরও সক্রিয় হওয়ার জন্য জোর দিতে শুরু করেছে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। এদিন এই প্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা তৃণমূল সভাপতি পার্থপ্রতিম রায় বলেন, “আমি জেলা সভাপতির দায়িত্ব নেওয়ার পর সমস্ত শিক্ষক সংগঠনকে ডেকে এই বার্তা দিতে চাইছি। পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির কুড়ি- পঁচিশ জন শিক্ষককে নিয়ে একটি ওয়ার্কিং গ্রুপ করে দেব। তারা ব্লক ভিত্তিক শিক্ষকদের আরও সংগঠিত করবেন। পরবর্তীতে সংগঠনের জেলা সভাপতি হিসেবে রাজ্য যাকে নির্বাচন করবে, তার নেতৃত্বে পরবর্তী পর্যায়ের কাজ হবে। এর পাশাপাশি আমাদের সংগঠনের শিক্ষকরা তাদের স্কুলের ছাত্র-ছাত্রী, পরিবারের সদস্যদের খবর নেবেন। স্কুল চত্বরে গিয়ে মানুষের সুবিধা-অসুবিধার বিষয়ে কথা বলবেন।

সেই সঙ্গে দলের উন্নয়নমূলক কর্মসূচী কথা মানুষের কাছে তুলে ধরবেন।” এছাড়াও বিজেপির কুৎসা, অপপ্রচারের জবাবও শিক্ষকদের দিতে হবে বলে জানিয়েছে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। বিশ্লেষকরা বলছেন, পার্থপ্রতিম রায় বেশ ভালই উপলব্ধি করেছেন, 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনে মানুষের কাছে পৌঁছতে গেলে আরও স্বচ্ছ মুখ সামনে আনতে হবে। তাই এক্ষেত্রে শিক্ষক সংগঠনকে হাতিয়ার করে মানুষের মনে দাগ কাটতে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যাচ্ছে তাকে। সব মিলিয়ে বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে কোচবিহার জেলা তৃনমূল নেতৃত্বের এই উদ্যোগ কতটা সাফল্য পায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!