এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > বীরভূম জেলার কর্তৃত্ত্ব কি ধীরে ধীরে বেরিয়ে যাচ্ছে অনুব্রত মন্ডলের হাত থেকে?

বীরভূম জেলার কর্তৃত্ত্ব কি ধীরে ধীরে বেরিয়ে যাচ্ছে অনুব্রত মন্ডলের হাত থেকে?



এবার স্বয়ং বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অনুব্রত মন্ডলের গড়ে শাসকদলের পার্টি অফিস পুড়লো অথচ খবর নেই তাঁর কাছে! এ যেন উলটপুরাণ, এতদিন বিজেপি অভিযোগ করতো তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এবার বিজেপির বিরুদ্ধে বীরভূমের মহম্মদ বাজার এলাকায় তৃণমূলের অঞ্চল অফিস পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠলো। জানা যাচ্ছে শুক্রবার সকালে তৃণমূল কংগ্রেসের সেকাড্ডা অঞ্চল অফিসে আগুন লাগে। অভিযোগ উঠেছে যে এর পেছনে আছে বিজেপি, আর এর জেরে সংঘর্ষ বাধে দুই দলে। ঘটনায় আহত হন অনেকেই, তাঁদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।
যদিও বিজেপির তরফ থেকে এই অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করা হয়েছে। উল্টে বিজেপির দাবি তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষের জেরে এই ঘটনা ঘটেছে। আশ্চর্যের বিষয় এই যে বীরভূমে এই ঘটনা ঘটলেও এখনো পর্যন্ত বিষয়টি সম্পর্কে তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল কিছু জানেন না বলে দাবি করেছেন। আর এতেই শুরু হয়েছে তীব্র জল্পনা। এমন একটি গুরুতর ব্যাপারে দলের জেলা সভাপতির কাছেই খবর নেই! রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠেছে যদি তৃণমূলের দাবি সত্যি হয় যে বিজেপি তৃণমূলের অফিস আগুন লাগিয়েছে তবে অনুব্রত মন্ডলের অগোচরে বিজেপি এতটা শক্তিবৃদ্ধি করে ফেলেছে বীরভূমে?আর যদি এটি শাসকদলের অভ্যন্তরীণ গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব হয় তবে অনুব্রত মন্ডলের হাত থেকে কি সংগঠনের রাশ আলগা হয়ে যাচ্ছে? ফলে উভয়-সংকটে পরে আপাতত মৌনব্রত ধারণ করেছেন বীরভূমের ডাকসাইটে রাজনীতিবিদ অনুব্রত মন্ডল বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্ট রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!