এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > এবার পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে থানা ঘেরাওয়ের হুমকি দিলেন তৃণমূল বিধায়ক

এবার পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে থানা ঘেরাওয়ের হুমকি দিলেন তৃণমূল বিধায়ক



এবার পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে থানা ঘেরাওয়ের হুমকি দিলেন তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ।মাত্র পনেরো দিনে ৮ টি লুটপাট সংক্রান্ত অপরাধ সংঘটিত হয়েছে দিনহাটা থানা এলাকায়। এমনই অভিযোগ তুলে তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ শনিবার দিনহাটা থানায় গিয়ে লিখিত দরখাস্ত জমা দেন। প্রসঙ্গত গত শুক্রবার রাতে প্রণব রায় নামে এক অলঙ্কার ব্যবসায়ীর কাছ থেকে আড়াই লক্ষাধিক টাকার সোনার অলঙ্কার ছিনিয়ে নিয়ে পালাই নম্বর-প্লেটহীন একদল বাইক দুষ্কৃতী।
উদয়নবাবু বলেন যে এলাকার অগ্রগতির জন্য তারা নানান কার্য করলেও শেষ পর্যন্ত পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার কারণে তাদের সব কল্যানকর প্রচেষ্টা নষ্ট হচ্ছে।পুলিশের কাজ  তোলাবাজির বিরুদ্বে লড়াই শুধু না, মানুষের নিরাপত্তার দিকেও তাদের কড়া নজর দেওয়া উচিত।আর তারা বারংবার এই ভাবে ব্যর্থতার সম্মুখীন হলে তৃণমূলের পক্ষ থেকে থানা ঘিরে বিক্ষোভ দেখানো হবে।এই নিয়ে তিনি বলেন,”এর পরেও যদি সমস্যা না মেটে তাহলে শাসক দল হয়েও আমরা থানা ঘেরাও করতে বাধ্য হব।” বিধায়কের অভিযোগ পুলিশি টহলদারী অনুপস্থিতির জন্যই  নম্বর-প্লেটহীন মোটরবাইক নিয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ানোর সাহস পাচ্ছে দুষ্কৃতীরা।উল্টোদিকে পুলিশের দাবি তারা ইতিমধ্যে অনেক অপরাধীকে শনাক্ত করে ফেলে প্রসেনজিৎ বর্মন নামে এক দুষ্কৃতীকে গ্রেফতারও করেছে।বিধায়কের দাবি অনুযায়ী এখনো পর্যন্ত  তিনটি দোকানে চুরি, একটি বাড়িতে চুরি , দু’টি বাইক চুরি এবং বিয়ে বাড়ির সামনে থেকেও একটি বাইক চুরির ঘটনা ঘটেছে।এ দিন উদয়নবাবুর সঙ্গে তৃণমূল নেতা অসীম নন্দী, বিশু ধর, ছাত্র নেতা সাবির সাহা চৌধুরী থানায় যান।
বিজেপির কোচবিহার জেলা সভাপতি নিখিলরঞ্জন দে বলেন যে মানুষ জানে শাসকদলই হলো দুষ্কৃতীদের  আঁতুড় ঘর।এই বিষয়ে কোচবিহারের পুলিশ সুপার অনুপ জায়সবাল বলেন, “দেখা হচ্ছে।”আবার সত্যিই দেখার বিষয় যে পুলিশ তাদের কাজে কত তাড়াতাড়ি তৎপর হয়ে দায়িত্বের সাথে কাজ করে। স্থানীয় বাসিন্দারা এখন সেই দুস্কৃতিমুক্ত এলাকার স্বপ্ন দেখছে।
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!