এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার তৃণমূলে বিদ্রোহী খোদ কলকাতার অন্যতম হেভিওয়েট নেতা! চিন্তায় ঘুম উড়ছে মমতা-অভিষেকের?

এবার তৃণমূলে বিদ্রোহী খোদ কলকাতার অন্যতম হেভিওয়েট নেতা! চিন্তায় ঘুম উড়ছে মমতা-অভিষেকের?



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – তৃণমূলের অন্দরে শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে টানাপোড়েন যে চরমে পৌঁছেছে সেই কথা আলাদা করে বলে দিতে হয় না। সেইসঙ্গে এই নিয়ে এর আগেও একাধিকবার মুখ খুলতে দেখা গিয়েছিল দলের একাধিক নেতা মন্ত্রীকে। সেখানে তাঁরা শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ বলেই এমন কথা বলছেন, এমনটাই বলা হয়েছিল দলের তরফে। কিন্তু বিরোধীদের মুখে কিন্তু এই নিয়ে কটাক্ষ লক্ষ্য করা গেছে ধারাবাহিকভাবেই।

অন্যদিকে, এই নিয়ে মুখ খুলেছেন স্বয়ং পরিবহন মন্ত্রী। তিনি বলেছিলেন এবার দলের অন্দরে নজর দেওয়ার সময় হয়ে গেছে। সেই সঙ্গে পিকে থেকে শুরু করে দলের একাধিক বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করছিলেন তিনি। কিন্তু এরপর ঘটনা ঘটেছে উল্টোপথে। বিশেষজ্ঞদের মতে, সেখানে তাঁর ঘনিষ্ঠ হিসেবে একাধিক নেতা মন্ত্রীর দল ছাড়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দল বেশি সাবধানী হতে চেয়েছে।

আর তাই দলের একাধিক শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ নেতা মন্ত্রীর পদ পরিবর্তনের কথাও শোনা গিয়েছিল। তবে এবার সেই তালিকায় উঠে এসেছে তৃণমূলের আরো এক হেভী ওয়েট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের নাম। জানা গেছে, কলকাতা পুরসভার বিদায়ী ডেপুটি মেয়র তথা প্রশাসকমণ্ডলীর অন্যতম সদস্য অতীন ঘোষ দল ছাড়তে পারেন বলেন জল্পনা শুরু হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, তৃণমূলের জন্মলগ্ন থেকেই অতীন ঘোষ দলের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। তিনি দলের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্যও বটে। কিন্তু সম্প্রতি তাঁর মন্তব্য কলকাতার তৃণমূল নেতাদের কপালে যথেষ্ট চিন্তার ভাঁজ ফেলছে বলেই অনুমান করা হচ্ছে। কারণ এবার কলকাতার পুরসভার অন্দরেই শোনা গেছে দলবিরোধী কথাবার্তা।

বিদায়ী ডেপুটি মেয়র অতীন ঘোষের দলের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে মন্তব্য করেছেন যে বিভিন্ন সময়ে যাঁরা দলকে, দলনেত্রীকে চূড়ান্ত আক্রমণ করেছেন, তাঁরাও দলে এসে এখন নেতৃত্ব দিচ্ছেন৷ আর এগুলোই যন্ত্রণা দেয় বলেই জানান তিনি৷ তাঁর কথায়, তাঁদের মতো যাঁরা দলটা শুরু থেকে করছেন, তাঁদের অনেকেই দলের কাজকর্মে হতাশ।

সেইসঙ্গে তিনি বলেন, এতদিন অনেক বঞ্চনার শিকার হয়েছেন। রাজনৈতিকভাবে কোণঠাসা করা হয়েছে, পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে এ নিয়ে এত বছর দলের মধ্যে কখনও মুখ খোলেননি তিনি। সেইসঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ”জনভিত্তি আছে, এমন নেতার সংখ্যা দলে খুবই কম। শুভেন্দু তাঁদের অন্যতম। ও দল ছাড়লে তৃণমূলের ক্ষতি হবে।”

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

শুধু তাই নয়, পিকে কে নিশানা করে অতীন ঘোষ বলেন, ”কোনও পেশাদারির আওতায় থেকে রাজনীতি করার অভিজ্ঞতা নেই। রাজনীতিতে পথপ্রদর্শক ছিলেন দলের সিনিয়র নেতারা।” সেইসঙ্গে মিহির গোস্বামী দল ছাড়া নিয়েও মন্তব্য করতে শোনা গেছে তাঁকে। তাঁর কথায়, ”কেন এত ভাল একজন সদস্য দল ছেড়ে দিলেন? দলই বা তাঁকে আটকাল না কেন?”

বস্তুত, এদিনের তাঁর বক্তব্যের পর বর্তমান পরিস্থিতিতে শুভেন্দু অধিকারীর মতো ‘জননেতা’ দল ছাড়লে যে দলের ক্ষতি হবে, সেটাও যেমন তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন। ঠিক তেমনই এর পাশাপাশি তিনিও যে দলে ক্রমশ কোণঠাসা হচ্ছেন, সেই অনুভূতির কথাও প্রকাশ করেছেন তিনি। সেইসঙ্গে তৃণমূলের নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজিস্ট প্রশান্ত কিশোরকে নিয়েও তিনি যে অসন্তোষ ব্যক্ত করেছেন তা ইতিমধ্যেই দলের অনেক নেতা মন্ত্রীর কণ্ঠে শোনা গিয়েছিল। তাই এবার এই বিষয়ে মনোযোগ দেওয়ার সময় এসেছে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!