এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মহিলা কর্মীকে কান ধরে উঠবোস করিয়ে জেল খেটে বেরোতেই ফুলের মালায় বরণ

মহিলা কর্মীকে কান ধরে উঠবোস করিয়ে জেল খেটে বেরোতেই ফুলের মালায় বরণ



রাজ্যের বহু প্রতীক্ষিত ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের মহিলা কর্মীকে প্রকাশ্যে সকল গ্রামবাসীর সামনে সম্মানহানী করে জেলে গিয়েছিলেন দলেরই অন্য নেতা অভিযুক্ত লক্ষ্মী কুইল্যা । এদিন তিনি জামিন পেয়ে জেল থেকে ছাড়া পেতেই তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা গলায় গেঁদা ফুলের মালা পরিয়ে তাঁকে বরণ করে নিলেন। উল্লেখ্য পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন মেদিনীপুর সদর ব্লকের কনকাবতীর বাগডুবি গ্রামের তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী কবিতা দাসকে প্রকাশ্যে দলেরই অন্য কর্মী এবং নেতার কাছে হেনস্থা হতে হয়। অভিযোগ ওঠে ঐদিন ওই দিন কবিতাদেবীকে গলায় জুতোর মালা পরিয়ে লক্ষ্মী কুইল্যা-সহ তৃণমূলের কয়েক জন কর্মী, সমর্থক কান ধরে ওঠবোস করিয়েছিলেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

কবিতা দেবী এদিনের ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ সহ তৃণমূল কংগ্রেসের বুথ সভাপতি আশিস পাত্র , লক্ষ্মী কুইল্যা , সহ তিন জনের নামে অভিযোগ জানান। অভিযুক্তরা এই ঘটনার পরে গা ঢাকা দিলেও বিরোধী দলের আন্দোলনের জেরে পুলিশ অভিযুক্ত লক্ষ্মী কুইল্যা কে গ্রেফতার করে । জানা যাচ্ছে এদিনের ঘটনার পরে তৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সভাপতি অজিত মাইতি , দলীয় সদস্য লক্ষ্মী কুইল্যাকে দল থেকে বহিষ্কার করেন। ঐ সময়ে কবিতাদেবীর স্বামী, এলাকার পূর্বতন পঞ্চায়েত সদস্য গোপাল দাস নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখে তৃণমূল করি। আমি এখনও তৃণমূলেরই কর্মী। স্ত্রীর সঙ্গে যা ঘটেছে তা মেনে নেওয়া যায় না। দলের কয়েক জনই কাণ্ড ঘটিয়েছে, সেটা আরও খারাপ লাগছে।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!