এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তৃণমূল ছেড়ে এবার বিজেপিতে যোগ দিলেন বর্ষীয়ান নেতা সহ বহু অনুগামী

তৃণমূল ছেড়ে এবার বিজেপিতে যোগ দিলেন বর্ষীয়ান নেতা সহ বহু অনুগামী



হুগলী জেলায় আচকাই ভোল বদল রাজ্যের শাসক দলের নেতা সহ বহু দলীয় কর্মীর। এদিন হুগলী জেলা বিজেপির-র কার্যালয়ে প্রবীণ তৃণমূল কংগ্রেস নেতা বিশ্বনাথ মালিক সহ তাঁর অনুগামী প্রায় শতাধিক তৃণমূল কংগ্রেস দলীয় কর্মী গেরুয়া শিবিরে যোগদান করলো।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বিজেপির রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসু তাঁদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে বরণ করে নিলেন। প্রসঙ্গতঃ অভিজ্ঞ তৃণমূল কংগ্রেস নেতা বিশ্বনাথ মালিক তাঁর রাজনৈতিক জীবনের প্রথম পর্যায়ে বলাগড় অঞ্চলের কংগ্রেস নেতা ছিলেন। কংগ্রেস দলের হয়ে একাধিক বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছেন। ২০০৬ সাল পর্যন্ত কংগ্রেস দলেরই সদস্য ছিলেন। এরপরে তিনি তৃণমূল কংগ্রেস দলে যোগদান করেন  এবং তৃণমূল কংগ্রেস দলের সদস্য হওয়ার সুবাদেই তিনি এলাকার সাধারণ মানুষের পছন্দে জনপ্রতিনিধি হওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন।

উল্লেখ্য ২০১৮ সালে সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনে তিনি রাজ্যের শাসক দলের মনোনয়ন না পেয়ে বলাগড় এলাকা থেকে নির্দল প্রার্থী হিসেবেই লড়াই করেছিলেন। কিন্তু তিনি উল্লেখযোগ্য ভাবেই এই নির্বাচনে তিনি পরাজিত হন। শাসক দলের বিশিষ্ঠ রাজনীতি বিশ্বনাথ মালিকের আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে দল পরিবর্তন প্রসঙ্গে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঐ অঞ্চলের স্থানীয় এক তৃণমূল কংগ্রেস নেতা বললেন, “বিশ্বনাথ মালিকের দল বদলে তৃণমূলের কিছুই হবে না। বিজেপিও কোনও সুবিধা পাবে না।”

বাম শরিক দল সিপিএম’র কন্ঠেও একই সুর শোনা গেলো। বলাগড়ের স্থানীয় এক বাম নেতা বললেন, “বিশ্বনাথ মালিকের বিরুদ্ধে অনেক দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। তাপবিদ্যুত্‍ কেন্দ্রে চাকরি দেওয়ার নাম করে এলাকার অনেক ছেলের থেকে টাকা নিয়েছিল। এই ধরনের দুর্নীতিগ্রস্ত লোকদেরকেই বিজেপি সঙ্গে নিয়ে চলে।”অন্যদিকে এই নিয়ে মুখ খোলেননি বিশ্বনাথবাবু।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!