এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > সংবিধানকে হাতিয়ার করে গ্রামে গ্রামে তৃণমূল নেতারা, ব্যাপক সাফল্যের দাবি! পাল্টা চ্যালেঞ্জ বিজেপির!

সংবিধানকে হাতিয়ার করে গ্রামে গ্রামে তৃণমূল নেতারা, ব্যাপক সাফল্যের দাবি! পাল্টা চ্যালেঞ্জ বিজেপির!



ভারতবর্ষের গণতন্ত্র বিপন্ন। দীর্ঘদিন ধরেই কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করে আসছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। এমনকি গত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলা থেকে আঠারোটির মত আসন পাওয়ায় তৃণমূলের চিন্তা বিজেপিকে নিয়ে অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছিল। তার পরেই দলের রাজনৈতিক পরামর্শদাতা প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শ মত বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচি লঞ্চ করতে শুরু করে তৃণমূল কংগ্রেস। যার ফলে কিছুটা হলেও বিজেপিকে কুপোকাত করার চেষ্টা করে তারা। দিদিকে বলো কর্মসূচির পর এবার “বাংলার গর্ব মমতা” বলে একটি মেগা কর্মসূচির সূচনা করেছে তৃনমূল কংগ্রেস।

ইতিমধ্যেই তার প্রথম ধাপ সম্পন্ন করেছে শাসকদল। জেলায় জেলায় প্রতিটি বিধানসভা কেন্দ্রেই কর্মী সম্মেলন এবং সাংবাদিকদের নিয়ে জলযোগ আহার সম্পন্ন করেছেন এই কর্মসূচির দায়িত্বে থাকা নেতৃত্বরা। তবে প্রথম ধাপে সংবিধান পাঠ করে তৃণমূল এই কর্মসূচি পালন করলেও, এবার কোচবিহার জেলায় বিজেপির বাড়বাড়ন্ত রুখতে গ্রামে গ্রামে সংবিধানের প্রতিলিপি নিয়ে ঘোরার পরিকল্পনা নিল তৃণমূল নেতৃত্ব। যা সাধারণ মানুষের হাতে তুলে দেওয়া হবে বলে খবর।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, রবিবার কোচবিহারে নিজের বাড়ির অফিসে একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন রাজ্যের উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। যেখানে তিনি বলেন, “দেশের সংবিধান সম্পর্কে মানুষের জানা দরকার। বিজেপি কি করছে, সবাই জেনে গিয়েছেন। সংবিধান রক্ষায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আন্দোলনের কথা আমরা সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরব।” একইভাবে সংবিধান হাতে নিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে যাওয়ার কথা বলেছেন জেলা তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি তথা কোচবিহারের প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ পার্থপ্রতিম রায়।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তৃণমূল বাংলা থেকে বিজেপির প্রভাবকে রুখতেই “বাংলার গর্ব মমতা” নামে কর্মসূচি নিয়ে এসেছে। সেদিক থেকে তারা বিজেপিকে কুপোকাত করতে সংবিধানকে হাতিয়ার করে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সংবিধান রক্ষা করছেন বলে দাবি করে বিজেপিকে কুপোকাত করার চেষ্টা করবেন। যদিও বা বিজেপি নেতৃত্ব তৃণমূলের এই কর্মসূচিকে গুরুত্ব দিতে নারাজ।

এদিন এই প্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা বিজেপির সভানেত্রী মালতি রাভা রায় বলেন, “কোনো প্রচারই আর তৃণমূলের কাজে লাগবে না। মানুষ পুরোপুরি রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে। তারা তৃণমূলের কথা আর বিশ্বাস করেন না।” সব মিলিয়ে এখন গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!