এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > তৃণমূলের হাতেই ‘অপহৃত’ তৃণমূল নেতার ‘প্রত্যাবর্তন’ – আদালতের রায়ে নতুন মোড়

তৃণমূলের হাতেই ‘অপহৃত’ তৃণমূল নেতার ‘প্রত্যাবর্তন’ – আদালতের রায়ে নতুন মোড়



জেলায় জেলায় শাসক বনাম বিরোধীর পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনকে ঘিরে এই বাংলা বহু উত্তপ্ত পরিস্থিতির সাক্ষী থাকলেও বোর্ড গঠনে শাসকের সাথেই শাসকের লড়াই কখনই কল্পনা করতে পারেনি কেউ। সূত্রের খবর, 18 আসনবিশিষ্ট দক্ষিন 24 পরগনার গোপালপুর পঞ্চায়েতে এবার 7 টি তৃনমূল, 3 টি এসইউসি, 2 টি বামফ্রন্ট এবং 6 টি আসনে তৃনমূল ছেড়ে বেরিয়ে আসা নির্দলেরা জয়ী হন। আর এরপরই এই 18 জনের মধ্যে 9 জন সদস্য জেলা পরিষদের সহকারী সভাপতি এবং ক্যানিং 1 ব্লকের সভাপতি শৈবাল লাহিড়ির দিকে এবং বাকি 9 জন সেই তৃনমূলেরই যুব সংগঠনের ক্যানিং 1 ব্লকের সভাপতি পরেশ দাসের দিকে ঝুকতে শুরু করায় শাসকদলের মাদার এবং যুবর মধ্যে তীব্র চাপানউতর তৈরি হয়।

জানা যায়, নিজের দিকে থাকা 9 জনের মধ্যে নন্দকিশোর সর্দারকে এই পঞ্চায়েতের প্রধান পদে বসানোর জন্য নাম ঘোষনা করেন যুব তৃনমূলের পরেশ দাস। পাল্টা তৃনমূলের শৈবাল লাহিড়িও তাঁর দিকে থাকা 9 জনকে নিয়ে প্রধান হিসাবে কতুব সর্দারের নাম ঘোষনা করলে তা মানতে রাজি হননি পরেশ দাসের অনুগামীরা। অভিযোগ, এরপরই পরেশ দাস যাঁকে প্রধান পদে নাম ঘোষনা করেছিলেন সেই নন্দকিশোর সর্দারকে অপহরন করা হয়। অভিযোগ ওঠে সেই শৈবাল লাহিড়ির গোষ্টীর দিকেই। যা নিয়ে হাইকোর্টে একটি মামলাও হয়। বোর্ড গঠনের জন্য আয়োজিত সভা হলেও কোনো ফল ঘোষনা করা যাবে না বলে নির্দেশও দেয় কোলকাতা হাইকোর্ট।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সূত্রের খবর, সেইমত সোমবার এই বোর্ড গঠনকে ঘিরে শুরু হয় তীব্র অশান্তি। এদিন আশ্চর্য্যজনকভাবে শৈবাল লাহিড়ির দিকে থাকা এক সদস্য এই প্রধান পদে কুতুব সর্দারকে সমর্থন করলে পরে তার কোনো পাত্তা পাওয়া যায়নি। এদিকে এদিন সবশেষে দেখা যায়, 9-8 ভোটে নির্দল প্রার্থী পুতুল বৈদ্যকে হারিয়ে প্রধান হন পরেশ দাসের ঠিক করা নন্দকিশোর সর্দার। এদিকে প্রধান পদে নন্দকিশোর সর্দার নির্বাচিত হওয়ার পরেই দু গোষ্টীর মধ্যে কাদাছোড়াছোড়ি এখনও অব্যাহত। এদিকে হাইকোর্টের শুনানিও রয়েছে 11 সেপ্টেম্বর। সব মিলিয়ে প্রধান পদ নিয়ে জেলায় জেলায় তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল।

আপনার মতামত জানান -

Top
Facebook Friends
error: Content is protected !!