এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > সবংয়ে উপনির্বাচনের আগে নতুন সমস্যায় তৃণমূল কংগ্রেস

সবংয়ে উপনির্বাচনের আগে নতুন সমস্যায় তৃণমূল কংগ্রেস



সবংয়ে উপনির্বাচনের নির্ঘন্ট ঘোষণা হয়ে গেছে, বিরোধীরা একের পর এক হেভিওয়েট প্রার্থীদের নাম হাওয়ায় ভাসিয়ে দিয়ে সবং নিজেদের দখলে রাখতে উঠেপড়ে লাগতে চলেছে, কিন্তু শাসকদল জর্জরিত গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের আঁচে। স্থানীয় সূত্রে প্রাপ্ত খবর থেকে জানা যাচ্ছে, এতদিন তৃণমূলের ভেমুয়া অঞ্চলের সভাপতি ছিলেন কার্তিক দাস। কার্তিকবাবুর সাথে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে আসা কর্মীদের ঘনিষ্ঠতা দিন দিন বাড়তে থাকে। এরফলে দলের পুরনো কর্মীদের একাংশের অসন্তোষও দিন দিন বৃদ্ধি পেতে থাকে । কয়েক মাস আগে ওই এলাকার একাংশ পুরনো কর্মীর চাপে তৃণমূলের ব্লক সভাপতি প্রভাত মাইতি বৈঠক ডেকে দলের অঞ্চল সভাপতি হিসাবে প্রকাশ মাইতির নাম ঘোষণা করেন। দলের অঞ্চল সভাপতি নির্বাচন ঘিরেই বিবাদের সূত্রপাত।
অভিযোগ, কয়েকদিন আগে রাতে কার্তিকবাবুরা তৃণমূলের অঞ্চল কার্যালয় থেকে বেরনোর পরেই ওই কার্যালয়ে কর্মী-সমর্থক নিয়ে ঢুকে পড়েন প্রকাশবাবুরা। কার্তিকবাবুর অনুগামীদের বক্তব্য দলের ওই কার্যালয় জোর করে দখল করে নিয়েছে প্রকাশবাবুরা। যদিও প্রকাশবাবুর অনুগামীদের পাল্টা দাবি, তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি হিসেবে তাঁরা ওই কার্যালয়ের দায়িত্ব নিয়েছেন। দু’পক্ষের বিবাদের জেরে উত্তেজনা বাড়তে থাকায় পুলিশ এসে কার্যালয় বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। সামনেই উপনির্বাচন কিন্তু তার আগেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে সবংয়েই দলীয় কার্যালয় বন্ধ হয়ে যাওয়ার মত ঘটনা সামনে আসতে স্পষ্টতই অস্বস্তিতে শাসকদল, তার সঙ্গেই আরেকবার সামনে এলো আদি বনাম নব্য লড়াই।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!