এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > প্রয়াত তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা, শোকের ছায়া রাজনৈতিকমহলে

প্রয়াত তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা, শোকের ছায়া রাজনৈতিকমহলে



উত্তর ২৪ পরগনা জেলার মধ্যমগ্রাম পুরসভার উপ পুরপ্রধান সুদীপ মিত্র গতকাল অর্থাৎ শুক্রবার দুপুরে বারাসতের এক বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মরণকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর।

সুদীপবাবু একজন আজীবনকাল রাজনীতিপ্রেমী মানুষ ছিলেন। ছাত্র রাজনীতির মাধ্যমে তাঁর রাজনীতি জীবনে পদার্পন। ছাত্র পরিষদের জেলা সভাপতিও ছিলেন তিনি।

জানা যায় প্রদেশ কংগ্রেসে থাকাকালীন তিনি তত্‍কালীন যুব কংগ্রেসের সভানেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুগামী ছিলেন। আর এরপর যখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর নতুন দল তৃণমূল কংগ্রেস খোলেন তখন সুদীপ বাবুও কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেন। আর এরপর থেকে তৃণমূলেই ছিলেন তিনি।

তৃণমূল কংগ্রেসের একনিষ্ঠ কর্মী ও মধ্যমগ্রাম এলাকার দক্ষ সংগঠক তৃণমূলের টিকিটেই কাউন্সিলর হওয়ার পাশাপাশি দীর্ঘদিন মধ্যমগ্রাম পুরসভার উপ পুরপ্রধান ছিলেন এবং আমৃত্যু নিষ্ঠার সঙ্গে সেই পদ সামলেছেন।

জানা যাচ্ছে ফুসফুসের সংক্রমণ এবং কিডনির সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। কিন্তু চিকিৎসকের শত চেষ্টা সত্ত্বেও ফিরে এলেন না তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিকে সুদীপবাবুর এই অকাল প্রয়াণে শোক প্রকাশ করেছেন দলের ছোট র সমস্ত নেতা নেত্রী বৃন্দ। সাথেই শোক প্রকাশ করেছেন মধ্যমগ্রামের বিধায়ক তথা পুরপ্রধান রথীন ঘোষ, বারাসত পুরসভার পুরপ্রধান সুনীল মুখোপাধ্যায় সহ বারাসাত ও মধ্যমগ্রাম অঞ্চলের সমস্ত স্তরের তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা। তাঁর এই অকাল প্রয়ানে রাজনৈতিকমহলে বড়সড় ক্ষতি হলো বলেই মত রাজনৈতিকমহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!