এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > দিলীপ ঘোষের প্রশংসা তৃণমূলের হেভিওয়েট মন্ত্রীর মুখে, জোর জল্পনা রাজ্যে

দিলীপ ঘোষের প্রশংসা তৃণমূলের হেভিওয়েট মন্ত্রীর মুখে, জোর জল্পনা রাজ্যে



 

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বেশ কিছুদিন আগেই লাগু হয়ে গিয়েছে। তবে এই আইন লাগু হওয়ার পর থেকেই তার চরম বিরোধিতা করতে শুরু করেছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। ইতিমধ্যেই কার্যত স্পষ্ট ভাষায় তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছেন যে, তিনি থাকতে কোনভাবেই বাংলায় এনআরসি হবে না। আর এই আইনের বিরোধিতা করায় পাল্টা তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে দেখা গেছে বিজেপি নেতাদের।

এবার এই আইনের বিরোধিতা নিয়ে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে কড়া ভাষায় হুংকার দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন তিনি বলেন, “যারা অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের সমর্থন করছেন, তাদের লুঙ্গি পরা অনুপ্রবেশকারীদের সঙ্গেই বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে। বাংলাদেশ থেকে শয়ে শয়ে এবং হাজার হাজার হিন্দুদের তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। সেই সব লোকদের নাগরিকত্ব দিতে কেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরোধিতা করছেন!” আর দিলীপ ঘোষের এহেন হুঁশিয়ারি এখন রাজনৈতিক মহলে তীব্র শোরগোল সৃষ্টি করেছে।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অনেকেই বলছেন, কোনো একটি নিয়মের বিরোধিতা করলেই কেন সেই বিরোধীদের উদ্দেশ্যে এহেন হুঙ্কার ছাড়ছেন দীলিপবাবু! তাহলে কি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে বিরোধিতা করার ক্ষমতাও এবার খর্ব হতে চলেছে! জানা যায়, এদিন অনুপ্রবেশকারীদের হুঁশিয়ারি দিয়ে দিলীপ ঘোষ আরও বলেন, “অনুপ্রবেশকারীরা বাংলার অপর পারে হিন্দুদের থাকতে দেয়নি‌। তাই অনুপ্রবেশকারীদেরও কোনো অধিকার নেই, এই অংশে থাকার। সুদে আসলে তাদের ফেরত পাঠানো হবে।”

এদিকে দিলীপ ঘোষ এই ধরনের মন্তব্য করায় তাকে পাল্টা কটাক্ষ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এদিন এই প্রসঙ্গে তৃণমূল মহাসচিব তথা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “দিলীপ ঘোষ আমাদের কাছে লক্ষ্মী। তিনি যত কথা বলবেন, ততই আমাদের সুবিধা।” অন্যদিকে এই ব্যাপারে রাজ্যের আরেক মন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা তাপস রায় বলেন, “ঘৃণ্য বক্তৃতা ছাড়া দিলীপ ঘোষের কিছু বলার নেই। ওনার নিজের এসব কথা বলার জন্য লজ্জা পাওয়া উচিত।” সব মিলিয়ে এবার নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের পরিপ্রেক্ষিতে বিরোধীদের হুঁশিয়ারি দিয়ে শোরগোল তুলে দিলেন দিলীপ ঘোষ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!