এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > বিজেপির জয় ব্যানার্জিকে ‘থামাতে’ এবার ‘বিশেষ’ পরিকল্পনা শাসকদলের

বিজেপির জয় ব্যানার্জিকে ‘থামাতে’ এবার ‘বিশেষ’ পরিকল্পনা শাসকদলের



অভিনেতা থেকে নেতা হয়ে ওঠা জয় বান্দ্যোপাধ্যাকে কি এবার অবশেষে গুরুত্ত্ব দিতে শুরু করল শাসক শিবির। এতদিন ধরে বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম উঠলে শাসকদলের নেতা-নেত্রীরা তো দূরের কথা, পাত্তা দিতেন না তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী-সমর্থকরাও। ‘ফ্লপ অভিনেতা’ থেকে ‘ক্যাবলা নেতা’ – এমনই সব বাছা বাছা বিশেষনে বিভূষিত করা হত তাঁকে, কিন্তু তাতে কান দিয়ে দমেননি জয়, রাজ্যের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে ছুটে গেছেন নিরলস ভাবে। একটার পর একটা সভা করে মাতিয়ে দিয়েছেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের, তাঁর হাত ধরে বিজেপিতে অন্যদল থেকে কেউ যোগদান করছেন এমন বোধহয় একটা দিনও নেই গত কয়েকমাসে। আর দলের প্রতি এই আনুগত্য ও কঠোর পরিশ্রমের পুরস্কার পেতে চলেছেন জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। আপাতত তিনি নিজের কৃতিত্ত্বেই বিজেপির রাজ্য শীর্ষনেতৃত্ত্বের মধ্যে নিজের আসন করে নিয়েছেন। আর সূত্রের খবর অনুযায়ী খুব শীঘ্রই সাধারণ সম্পাদকের পদে আসীন করা হবে তাঁকে।
কিন্তু দলীয় পুরস্কারের চেয়েও বড় পুরস্কার জয় বন্দ্যোপাধ্যায় বোধহয় পেলেন শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের থেকে। তাঁকে যে শাসকদলও রীতিমত গুরুত্ত্ব দিচ্ছে এবং তাঁকে ‘আটকাতে’ বিশেষ পরিকল্পনা করছে তা এখন জলের মত পরিষ্কার। আর কাঁটা দিয়ে কাঁটা তোলার মত, জয় বন্দ্যোপাধ্যায়কে আটকাতে আসরে নামানো হচ্ছে তাঁরই পত্নী, শাসকদলের কাউন্সিলর অনন্যা বন্দ্যোপাধ্যায়কে, এমনই জানালেন রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। শুধু তাই নয়, যেখানে যেখানে জয় ব্যানার্জী এবার থেকে সভা করবেন সেখানে সেখানেই অনন্যাদেবীকে দিয়ে মানুষকে বোঝানো হবে জয় তথা বিজেপি ভুল, আসল উন্নয়ন করবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
আর এর এক ঝলক ট্রেলর গতকাল দেখা গেল রায়নাতে। যেখানে কিছুদিন আগেই বিরাট জনসভা করেছিলেন বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। একদা বামেদের শক্ত ঘাঁটি ছিল এই রায়না, যা স্বপন দেবনাথের হাত ধরে এখন তৃণমূলের গড়ে পরিণত হয়েছে। কিন্তু সেখানেও জয়ের হাত ধরে প্রায় ৮০ টি তৃণমূল সমর্থক পরিবার বিজেপির পতাকাতলে আসে। আর তাই তৃণমূল কংগ্রেস এদিন পাল্টা সভা করলেন স্বপন দেবনাথের নেতৃত্ত্বে, কিন্তু সভার মুখ্য বক্তার নাম স্বপনবাবু নয় বরং অনন্যা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন অনন্যাদেবী বলেন, আমার পরিবার বিজেপি করে। কিন্তু, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমাদের যে সম্মান দিয়েছেন তা রক্ষা করতে ঘরের শত্রুদের চিহ্নিত করতে হবে। তাদের সূরে সরিয়ে রাখতে হবে। “জয় আগে আমার সঙ্গে তৃণমূল করত। এখন হতাশা থেকে ও বিজেপি করছে। যারা করে তারা হতাশা থেকেই বিজেপি করে। আর স্বপন বাবু বলেন, কোথায় কোথায় জয় বন্দ্যোপাধ্যায় সভা করছেন তা নজরে রাখুন। যেখানেই তার সভা হবে সেখানেই অনন্যা বন্দ্যোপাধ্যায় দিয়ে সভা করানো হবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!