এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পৌরসভার আধিকারিককে হুমকির অভিযোগ উঠলো তৃণমূল কাউন্সিলরের স্বামীর বিরুদ্ধে

পৌরসভার আধিকারিককে হুমকির অভিযোগ উঠলো তৃণমূল কাউন্সিলরের স্বামীর বিরুদ্ধে



ওয়ার্ডের কাজকর্মের প্রতি বিশেষ নজর দিতে কয়েকটি ওয়ার্ডের জন্য একটি করে কনজ়ারভেন্সি ওয়ার্ড অফিস রয়েছে বেলুড়ে।আর এবার সেই অফিসে ঢুকে দাদাগিরির অভিযোগ উঠলো বেলুড়ের তৃণমূল কাউন্সিলর সীমা ভৌমিকের স্বামী দিবাকর ভৌমিকের বিরুদ্ধে। বেলুড় কনজারভেন্সি অফিসের আধিকারিকের বক্তব্য, এদিন তিনি অফিসে আচমকাই ঢুকে পড়েন আর এলাকায় সাফাইয়ের কাজ হচ্ছে না এই অভিযোগ তুলে ঝামেলা শুরু করেন। তিনি বলেন,“কে আপনাকে এখানে পাঠাল ? কিছু জানেন না। চেয়ার দখল করে বসে আছেন। কাজ শিখুন অন্যদের থেকে। সিনিয়রদের জিজ্ঞাসা করুন, কীভাবে কাজ করব। ছেলেখেলা করছেনওয়ার্ডের কাজকর্মের প্রতি বিশেষ নজর দিতে কয়েকটি ওয়ার্ডের জন্য একটি করে কনজ়ারভেন্সি ওয়ার্ড অফিস রয়েছে বেলুড়ে। ? কাল যদি একটা কমপ্লেন এসেছে, ভেঙেচুরে দিয়ে যাব ২০০ লোক নিয়ে এসে।” আধিকারিক প্রবীর শর্মা নানা ভ্যানে দিবাকারবাবুকে শান্ত করার চেষ্টা করেন কিন্তু তাতে কাজ হইয়া। তিনি বলেন , “কেন কাজ হচ্ছে না, এলাকার লোক এসে বলছে ?আপনি কাউন্সিলরকে জানিয়েছেন ? ৬০ নম্বর ওয়ার্ডটা দেখবে কে ?”“কী জানেন এলাকা নিয়ে ? কতখানি এলাকা পরে কিছুই জানেন না। উলটো পালটা কথা বলবেন না দাদা। আমার মাথা কিন্তু গরম আছে। কে আপনাকে এখানে পাঠাল ? কিছু জানেন না। চেয়ার দখল করে বসে আছেন। কাজ শিখুন অন্যদের দেখে। সিনিয়রদের জিজ্ঞাসা করুন, কীভাবে কাজ করব। ছেলেখেলা করছেন ? কাল যদি একটা কমপ্লেন এসেছে, ২০০ লোক নিয়ে এসে ভেঙেচুরে দিয়ে যাব।” এরপর ছুঁড়ে ফেলে দেন প্রবীরবাবুর হাতে থাকা ফাইল। আরও চিৎকার করে বলেন, “আপনি যান আগে কাউন্সিলরের কাছে। কাউন্সিলরের কাছে যাবেন এখনই। উঠুন চেয়ার থেকে। করতে হবে না কাজ। মানুষ শালা আমাদের অফিস ঘেরাও করে দেবে আর আপনারা এখানে বসে কাজ করবেন ? যত সব নাটক। যদি না এসেছেন, তাহলে আমরা কিন্তু লিখিত অভিযোগ জানাব মেয়র, কমিশনারকে।” চুপ করে যান প্রবীরবাবু। বেরোনোর সময় অশ্লীল ভাষায় তাঁকে গালি দেন তৃণমূল কাউন্সিলরের স্বামী। এই ঘটনায় তৃণমূলের কাউন্সিলর বলেন যে তাঁর স্বামী সকালে গ্যাস লিক করে প্রায় ৩০ জন লোক অসুস্থ হয়ে পড়েছিল। এদের দ্রুত হাসপাতালে পাঠানোর জন্য কর্মীর প্রয়োজন ছিল। সে কারণেই ওয়ার্ডের ওই অফিসে গিয়েছিলেন । কোনো দাদাগিরি করেন নি।স্থানীয়দের দাবি এর আগেও একাধিকবার দিবাকরের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। এর আগে তিনি হকিস্টিক নিয়ে ভয় দেখিয়েছেন, প্রোমোটারের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা তোলা চেয়ে হুমকি দিয়েছেন।কিন্তু তাঁকে গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ বলেও অভিযোগ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!