এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ফের জেলা পর্যবেক্ষকের বৈঠকে অনুপস্থিত কাউন্সিলররা, চিন্তার ভাঁজ তৃণমূলের কপালে

ফের জেলা পর্যবেক্ষকের বৈঠকে অনুপস্থিত কাউন্সিলররা, চিন্তার ভাঁজ তৃণমূলের কপালে



লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির উত্থান ঘটার পরই দিকে দিকে শাসক দল ছেড়ে অনেক কাউন্সিলার এবং বিধায়করা বিজেপিতে যোগদান করতে শুরু করেন। যার ফলে বর্তমানে রাজ্যের শাসক দলের দখলে থাকা বেশ কিছু পৌরসভা বিজেপির দখলে চলে এসেছে। আর এরই মাঝে এবার হরিণঘাটা পৌরসভা নিয়ে প্রবল অস্বস্তিতে পড়তে চলেছে শাসক দল।

প্রসঙ্গত, 17 আসন বিশিষ্ট এই পৌরসভায় কিছুদিন আগেই দিলীপ রায়, তাপস হালদার, নিলয় রায়, সুমন্ত মন্ডল সহ 7 জন তৃণমূল কাউন্সিলর কাঁচরাপাড়ায় বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের বাড়িতে গিয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখান। আর তখনই আরও তিনজন কাউন্সিলার বিজেপিতে যোগ দেবেন বলে জানান সেই দলবদলকারীরা। যার জেরে প্রথম থেকেই কিছুটা হলেও এই বোর্ড বাঁচাতে মরিয়া হয়ে ওঠে তৃণমূল। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে শাসকদলের চিন্তাকে আরও বাড়িয়ে দিয়ে তৃণমূলের ডাকা বৈঠকে এই হরিণঘাটা পৌরসভার তিন কাউন্সিলরের অনুপস্থিতি প্রবল জল্পনা সৃষ্টি করল‌।

সূত্রের খবর, রবিবার এই হরিণঘাটা পৌরসভা যাতে তাদের হাত থেকে হাতছাড়া না হয়, তার জন্য নদীয়া জেলা তৃণমূলের পর্যবেক্ষক রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় একটি বৈঠক করেন। আর চাকদহের সিংহেরবাগানে বাগানে জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা তৃণমূল বিধায়ক শঙ্কর সিংয়ের বাড়িতে ডাকা এদিনের বৈঠকে হরিণঘাটা পৌরসভার বিউটি দাস, মানিক ভট্ট এবং শান্তা পাল নামে তিন কাউন্সিলারের অনুপস্থিতি তৃণমূলের অস্বস্তিকে আরও বাড়িয়ে তুলল বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তাহলে কি অতীতে যখন এই পৌরসভার 7 জন কাউন্সিলর বিজেপিতে গেলেন, তখন তারা আরও তিনজন কাউন্সিলরও বিজেপিতে আসবেন বলে যে কথা বলেছিলেন, তা কি অবশেষে সত্যি হতে চলেছে! কেন তারা এদিনের সভায় উপস্থিত হলেন না! জানা গেছে বিউটি দাস শারীরিক অসুস্থতার কারণ জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন। অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে মানিক ভট্ট বলেন, “অসুস্থ বলে যেতে পারিনি।”

অপরদিকে শান্তা পাল বলেন, “আমার শাশুড়ি অসুস্থ। তাই যেতে পারিনি।” অন্যদিকে এদিনের এই বৈঠক প্রসঙ্গে এবং তাতে তিনজন কাউন্সিলরের অনুপস্থিতি প্রসঙ্গে নদিয়া জেলা তৃণমূলের পর্যবেক্ষক তথা মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, “আমি শংকরদার বাড়িতে এসেছিলাম। তাই হরিণঘাটা পৌরসভার কয়েকজন কাউন্সিলার আমার সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন। কোনো সভা ডাকা হয়নি। তাদের সঙ্গে এমনি কথা বলেছি। আমাদের দলের বোর্ড নিয়ে কোনো সমস্যা নেই।”

একইভাবে হরিণঘাটায় কোনো সমস্যা নেই। সমস্ত কিছু ঠিকই আছে বলে জানান জেলা তৃণমূল সভাপতি শংকর সিংহ। সব মিলিয়ে এবার জেলা পর্যবেক্ষকের বৈঠকে হরিণঘাটা পৌরসভার তৃণমূল কাউন্সিলরদের অনুপস্থিতি দলবদলের জল্পনাকে দ্বিগুণ পরিমাণে উসকে দিল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!