এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > বোর্ড গঠনে তৃনমূলকে সমর্থন-তীব্র ডামাডোল শুরু গেরুয়া শিবিরের অন্দরে

বোর্ড গঠনে তৃনমূলকে সমর্থন-তীব্র ডামাডোল শুরু গেরুয়া শিবিরের অন্দরে



হাতে থেকেও যেন বিজেপির হাতছাড়া হল পুরুলিয়ার ঝালদা 1 পঞ্চায়েত সমিতি। সারা রাজ্যে যখন তৃনমূলকে আটকাতে বাম, কংগ্রেসের হাত ধরে বোর্ড গঠনের চেষ্টা করছে বিজেপি ঠিক তখনই সেই ব্যাতিক্রম চিত্র দেখা গেল ঝালদায়। সূত্রের খবর, গত বৃহস্পতিবার বোর্ড গঠনের সময় এই ঝালদা 1 পঞ্চায়েত সমিতিতে তৃনমূলের সভাপতি এবং সহ সভাপতি পদের প্রার্থীকে সমর্থন করে বিজেপি এবং সিপিএমের সদস্যরা। আর এই ঘটনায় বিজেপির ব্লক এবং জেলা নেতাদের বিরুদ্ধে সোশাল মিডিয়ায় সরব হয়েছেন নীচুতলার নেতা কর্মীরাই। যার জেরে একে অপরের প্রতি দোষারোপের পালাও শুরু হয়েছে জেলা বিজেপির অন্দরে। এব্যাপারে ঝালদার বাসিন্দা তথা বিজেপি নেতা সমীর কান্দু বলেন, “এরকম ঘটনা কোনোদিনও ঘটতে দেখেনি।”

এই ঘটনার জন্যে তিনি এই ক্যাম্পে দলীয় দ্বায়িত্বে থাকা জেলা বিজের সাধারন সম্পাদক জ্যোতিপ্রিয় মাহাত এবং ঝালদা ব্লকের নেতা শঙ্কর মাহাতর দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন। তবে জেলা বিজেপির সাধারন সম্পাদক জ্যোতির্ময় মাহাত বলেন, “তৃনমূলের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই। আর আমরাই কেন তৃনমূলকে সমর্থন করতে যাব?”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

পাশাপাশি সোশাল মিডিয়ায় দলেরই নীচুতলার কর্মীরা দলের বিরুদ্ধে কথা বলায় জ্যোতির্ময়বাবু বলেন, “কে কোথায় কি লিখল তাতে কিছু যায় আসে না। সব কিছুর জবাব দিতে হবে নাকি?” তবে এই সমস্ত ঘটনা প্রসঙ্গে কি বলছেন জেলা বিজেপির সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী? এদিন তিনি বলেন, “রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র থাকতেই পারে। বিজেপির সঠিক কর্মীরা কেন নেতাদের সমালোচনা করবেন? সমস্ত কিছু আমরা রাজ্য নেতৃত্বকে জানাবেন।” রাজনৈতিক মহলের মতে, পঞ্চায়েত সমিতি দখলের বদলে এ যেন নিজেদের অন্তর্দ্বন্দ্বকেই প্রকাশ্যে নিয়ে এল গেরুয়া শিবির।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!